বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮
বুধবার, ৭ই অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
হুড়োহুড়িতেই দুর্ঘটনা ঘটেছে: ইকবাল বাহার
প্রকাশ: ০৬:৪০ pm ১৯-১২-২০১৭ হালনাগাদ: ০৬:৪০ pm ১৯-১২-২০১৭
 
চট্রগ্রাম প্রতিনিধি
 
 
 
 


চট্টগ্রামের সাবেক মেয়র মহিউদ্দিন চৌধুরীর কুলখানিতে মেজবান খেতে গিয়ে পদদলিত হয়ে ১০ জন হিন্দু নিহত হওয়ার ঘটনা কোনও সহিংসতা নয় বলে জানিয়ে সিএমপি কমিশনার ইকবাল বাহার বলেছেন, ‘এ ঘটনার পেছনে অন্যকোনও কারণ ছিল না। তারা খেতে গিয়েছিলেন, কিন্তু হুড়োহুড়ির কারণে পদদলিত হয়ে কয়েকজন মারা গেছেন। কোনও সহিংসতা বা অন্য কিছু ছিল না। আগত ব্যক্তিরা হুড়োহুড়ি করে ঢুকতে গিয়ে পদদলিত হয়েছেন।’

সোমবার সন্ধ্যায় দুর্ঘটনার পর সিএমপি কমিশনার একথা জানান। তিনি আরও বলেন, ‘নিরাপত্তার স্বার্থে ১৪টি খাবারের ভেন্যুর প্রতিটির সামনেই পুলিশ সদস্য এবং আয়োজকদের পক্ষ থেকে স্বেচ্ছাসেবক দল ছিল। পুরো আয়োজন শৃঙ্খলার মধ্য দিয়েই পরিচালিত হচ্ছিল। কিন্তু রীমা কমিউনিটি সেন্টারের মধ্যবর্তী স্থান মূল রাস্তা থেকে একটু নিচে, ঢালু জায়গায়। সেখানে দু’টি গেট আছে। একটি গেট প্রবেশ পথ ও অন্যটি বের হওয়ার রাস্তা হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছিল। বেলা দুইটার দিকে একটি ব্যাচ খাওয়া শেষ করে। এরপর নতুন করে আরেকটি ব্যাচকে খাওয়ার জন্য প্রবেশ গেট খুলে দিলে সবাই একসঙ্গে হুড়মুড় করে ঢোকার চেষ্টা করে। তখন ধাক্কা ও চাপ সামলাতে না পেরে অনেকে মাটিতে পড়ে যান। আর ঢালু পথ থাকায় নামার গতির কারণে অন্যরা তাদের ওপর উঠে পড়েন। এসময় পদদলিত হওয়ার ঘটনা ঘটে।’

দুর্ঘটনার পর নিহতদের লাশ চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। লাশ শনাক্ত করার পর নিহতদের পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করার প্রক্রিয়া চলছে বলেও জানান ডিএমপি কমিশনার ইকবাল বাহার।

চট্টগ্রাম বিএমএ’র সাধারণ সম্পাদক ও চমেক হাসপাতালের ডা. ফয়সল ইকবাল বলেন, ‘১০ জন মারা গেছেন। বাকিদের সর্বোচ্চ চিকিৎসা দেওয়ার ব্যাপারে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।’ এখনও হাসপাতালের ক্যাজুয়ালটি ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আছেন আরও ১০ জন।

প্রচ

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71