মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০১৯
মঙ্গলবার, ১০ই বৈশাখ ১৪২৬
সর্বশেষ
 
 
২০১৭ সালের প্রযুক্তি খাত
প্রকাশ: ০৯:১৭ am ০১-০১-২০১৮ হালনাগাদ: ০৯:১৭ am ০১-০১-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


হাতের মুঠোয় থাকা স্মার্টফোন থেকে শুরু করে বিশ্ব রাজনীতি- ২০১৭ সালে সবকিছুতেই প্রযুক্তি খাতের প্রভাব ছিল চোখে পড়ার মতো। মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে সামাজিক মাধ্যমের প্রভাব, বিশ্বব্যাপী চালানো হ্যাকিং আর প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর ওঠা-নামা, এ বছরে রয়েছে আলোচনার ঝড় তোলা নানা ঘটনা।
ফিরে দেখা যাক বছরজুড়ে প্রযুক্তি খাতে হয়ে যাওয়া এসব ঘটনার দিকে

নির্বাচন, ভুয়া সংবাদ আর সামাজিক মাধ্যম

২০১৬ সালেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে সামাজিক মাধ্যম আর ভুয়া সংবাদ নির্বাচনের ফলাফলে প্রভাব ফেলেছে বলে অভিযোগ ওঠে। এই অভিযোগের রেশ ছিল ২০১৭ সালজুড়েও। বছরের শুরুতেই চাপের মুখে পড়ে গুগল, ফেইসবুক আর টুইটারের মতো ইন্টারনেট জায়ান্টগুলো। আত্মপক্ষ সমর্থনের পাশাপাশি কিছু ক্ষেত্রে দোষ স্বীকারও করে নেয় তারা। সারা বছরই দেখা গেছে ভুয়া সংবাদ ও ভুল দিকে পরিচালিত করতে পারে এমন তথ্য ছড়ানো বন্ধে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে প্রতিষ্ঠানগুলো। এর জের ধরে ২০১৯ সালে অনুষ্ঠিতব্য কানাডার নির্বাচনে সাইবার ঝুঁকি আছে বলে শঙ্কা প্রকাশ করা হয়।

বছরের সেপ্টেম্বরে এক টুইটে ফেইসবুক “সব সময় ট্রাম্পবিরোধী ছিল” বলে মন্তব্য করেন ২০১৬ সালের নির্বাচনে জয়ী হওয়া মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এ নিয়ে নিজের ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে দেওয়া এক পোস্টে পাল্টা জবাব দেন ফেইসবুক প্রধান মার্ক জাকারবার্গ।

নভেম্বরে ৬৫টি দেশে ইন্টারনেট স্বাধীনতা নিয়ে গবেষণা চালিয়ে একটি বার্ষিক প্রতিবেদন প্রকাশ করে পর্যবেক্ষক সংস্থা ফ্রিডম হাউস। এতে বলা হয়, ২০১৬ সালে অনলাইনে ভুয়া তথ্য ছড়ানোর কারণে ১৮টি দেশের নির্বাচন প্রভাবিত হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র-রাশিয়া

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে সামাজিক মাধ্যম আর ইন্টারনেট প্রতিষ্ঠানগুলোর কারণে ভুয়া সংবাদের প্রভাব পড়েছে বলার পর, এই সংবাদ আর মিথ্যা তথ্য ছড়ানোর পেছনে রাশিয়ার হাত ছিল বলে অভিযোগ তোলা হয়। নির্বাচনে রুশ হ্যাকিং চালানো হয়েছে বলেও অভিযোগ ওঠে। রাশিয়ার পক্ষ থেকে বারবারই এ ধরনের অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে।

সামাজিক ও রাজনৈতিক বিভেদ সৃষ্টিকারী বার্তার প্রচারণা চালাতে রাশিয়ার তহবিল যোগানোর সন্ধান পাওয়ার কথা সেপ্টেম্বরে জানায় ফেইসবুক। এ নিয়ে বিশ্বের সবচেয়ে বড় সামাজিক মাধ্যমটি মার্কিন সরকারের বিশেষ কৌঁসুলী রবার্ট মুয়েলার-এর কাছে তাদের প্রমাণ হস্তান্তর করছে। মুয়েলার ২০১৬ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন নিয়ে রুশ হস্তক্ষেপের বিষয়ে চলমান তদন্ত পর্যবেক্ষণ করছেন।

ফেইসবুক এমন অভিযোগ তোলার পর আলোচনায় প্রবেশ করে ওয়েব জায়ান্ট গুগলও। তবে, রুশ প্রজ্ঞাপন প্রচারণা চালানোর অভিযোগ নিয়ে কোনো প্রমাণ না পাওয়ার কথা জানায় তারা। এক পর্যায়ে ফেইসবুকের মতামতের দ্বারস্থ হয় মার্কিন নির্বাচন কমিশন। 

হ্যাকিং

২০১৭ সালের প্রযুক্তি খাতে অন্যতম আলোচিত বিষয় ছিল হ্যাকিং। মে মাসে বিশ্বজুড়ে চালানো হয় সাইবার হামলা, আক্রান্তদের কাছ থেকে চাওয়া হয় মুক্তিপণ। ‘ওয়ানাক্রাই’ নামের এই র‍্যানসমওয়্যার হামলায় আক্রান্ত হয় রাশিয়ার ডাক বিভাগ ও ব্যাংক খাত আর যুক্তরাজ্যের জাতীয় স্বাস্থ্য সেবাসহ দেড়শ’ দেশের নানা প্রতিষ্ঠান, সরকারি সংস্থা আর ব্যক্তি মালিকানাধীন কম্পিউটার।

এই হামলার প্রভাব কাটতে না কাটতেই আসে আরও বড় হামলার হুমকি। জুনেই আবারও বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ‘র‌্যানসমওয়্যার’ ছড়িয়ে গুরুত্বপূর্ণ অনেক প্রতিষ্ঠানের নেটওয়ার্ক অপরাধীদের নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার খবর প্রকাশ হয়। ওয়ানাক্রাইয়ের ‘জঘন্য জ্ঞাতি ভাই’ আখ্যা পাওয়া ‘নিয়োটিয়া’ নামের এই র‍্যানসমওয়্যারে আক্রান্ত হয় ইউক্রেইনের বিমানবন্দর আর রাষ্ট্রীয় বিদ্যুৎ সরবরাহকারী সংস্থাসহ বিভিন্ন দেশের প্রতিষ্ঠানগুলো।

বছরের শেষে ওয়ানাক্রাই হামলার পেছনে উত্তর কোরিয়ার হাত রয়েছে বলে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়। কিন্তু ওই অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে উত্তর কোরিয়া। 

হ্যাকিংয়ের ঘটনা এখানেই শেষ নয়, বছরের মার্চে হ্যাকিংয়ের শিকার হয় অ্যামনেস্টি আর ইউনিসেফ-এর টুইটার অ্যাকাউন্ট। এ মাসেই খবর পাওয়া যায় সামরিক বাহিনী কর্মীসহ ৩.৩ কোটিরও বেশি মার্কিন কর্মীর বিস্তারিত তথ্য অনলাইনে ফাঁস হয়েছে, আসে ব্রিটিশ অভিনেত্রী এমা ওয়াটসন-এর বেশ কিছু ব্যক্তিগত ছবি অনলাইনে ছড়িয়ে পড়ার খবরও।

এপ্রিলে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে বর্তমান প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁ-এর প্রচারণার মেইল হ্যাকিংয়ের শিকার হয়। জুলাইয়ে হ্যাকিংয়ের শিকার হয় রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

হ্যাকিংয়ের থাবা পড়েছে বিনোদন খাতেও। ভিডিও স্ট্রিমিং সাইট নেটফ্লিক্স, বহুজাতিক ভিডিও হোস্টিং সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান ভেভো আর টিভি চ্যানেল এইচবিও হ্যাকিংয়ে আক্রান্ত হয়। এইচবিও’র হাত ছাড়া হয়ে যায় জনপ্রিয় টিভি সিরিজ গেইম অফ থ্রোনসসহ কয়েকটি টিভি অনুষ্ঠান। প্রচারের আগেই ফাঁস হয়ে যাওয়া অনুষ্ঠানগুলোর জন্য মুক্তিপণ চায় হ্যাকাররা, এ নিয়ে হিমশিম খেতে হয় এইচবিওকে। এমনকি প্রতিষ্ঠানটি হ্যাকারদের দাবি মেনে নিয়েছে বলেও খবর আসে। হ্যাকারদের ছোবল থেকে রক্ষা পায়নি টিভি চ্যানেলটির ফেইসবুক আর টুইটার অ্যাকাউন্টও। 

সেপ্টেম্বরে ক্রেডিট রিপোর্ট জায়ান্ট ইকুইফ্যাক্স-এ চালানো সাইবার আক্রমণে ঝুঁকির মুখে পড়ে ১৪ কোটি ৩০ লাখ মার্কিন গ্রাহকের তথ্য। আর নানা সময় নানা ডেটা ফাঁসের ঘটনায় তো ছিল পুরো বছরই।

স্মার্টফোন

২০১৭ সালে স্মার্টফোন জগতে সবচেয়ে আলোচনা সৃষ্টিকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর নাম নিতে গেলে অ্যাপল, স্যামসাং আর নোকিয়ার নাম নিতেই হচ্ছে।

স্মার্টফোন খাতে ২০১৬ সালটা দক্ষিণ কোরীয় ইলেকট্রনিক জায়ান্ট স্যামসাংয়ের জন্য মন্দাই ছিল বলা চলে। আগের বছরের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে ২০১৭ সালের মার্চে ভিন্ন আঙ্গিকের গ্যালাক্সি এস৮ এবং এস৮ প্লাস নামে নতুন দুটি স্মার্টফোন উন্মোচন করে স্যামসাং। এই দুই স্মার্টফোনে আনা হয় ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট বিক্সবি। গ্যালাক্সি এস৮-এ ব্যবহৃত আইরিশ স্ক্যানার নিরাপত্তা প্রযুক্তি ধোঁকা খাওয়ার অভিযোগ উঠলে স্যামসাং এ নিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেয়। অগাস্টে গ্যালাক্সি নোট ৮ উন্মোচন করে প্রতিষ্ঠানটি। 

বছরের শুরুতে মোবাইল ফোনে ‘নোকিয়া’ ব্র্যান্ডনাম ব্যবহারের সত্ত্বাধিকার পাওয়া ফিনিশ প্রতিষ্ঠান এইচএমডি তাদের প্রথম স্মার্টফোন নোকিয়া ৬-এর ঘোষণা দেয়। ফেব্রুয়ারিতে নতুন রূপে উন্মোচিত হয়েছে ২০০০ সালের সর্বাধিক বিক্রিত ফিচার ফোন নোকিয়া ৩৩১০। অগাস্টে উন্মোচন করা হয় আরেকটি স্মার্টফোন নোকিয়া ৮, সে সময় এর দাম ধরা হয় ৭০২ ডলার। অক্টোবরে নোকিয়া ৮-এর প্রায় অর্ধেক দামে ৪০০ ডলারে নোকিয়া ৭ উন্মোচন করা হয়।

চলতি বছর ছিল অ্যাপলের আইফোনের দশ বছরপূর্তি। এইডস নিয়ে সচেতনতা বাড়ানোর লক্ষ্যে বছরের মার্চে লাল রঙের আইফোন ৭ উন্মোচন করা হয়। সেপ্টেম্বরে অ্যাপল ইভেন্টে আনা হয় নতুন তিন আইফোন। নামকরণের ক্ষেত্রে প্রচলিত রীতির বাইরে আইফোন ৭এস ও ৭এস প্লাস বাদ দিয়ে এই ইভেন্টে নতুন আইফোন ৮ ও ৮ প্লাস উন্মোচন করেছে অ্যাপল। এর পাশাপাশি আইফোনের দশ বছরপূর্তি উপলক্ষ্যে নতুন আইফোন টেন উন্মোচন করে প্রতিষ্ঠানটি। টেন নামকরণ করা হলেও রোমান রীতিতে X অক্ষর ব্যবহার করে এ নাম লেখা হয়। আইফোন X-এ আনা ফেইস আইডি নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে উন্মোচন মঞ্চেই দেখা যায় বিভ্রাট। পরে এর ব্যাখ্যাও দেওয়া হয়। মুখোশ আর জমজ চেহারায় ফেইস আইডি ধোঁকা খেয়েছে বলেও খবর প্রকাশ হয়। চার্জ দিতেই ব্যাটারি ফুলে আইফোন ৮ খুলে দুই ভাগ হয়ে যাওয়ার অভিযোগও এসেছে। 

বছরজুড়ে স্মার্টফোন খাতে স্যামসাং আর অ্যাপলের পর শীর্ষস্থানে দেখা গেছে হুয়াওয়ে, শিয়াওমি আর অপ্পো’র মতো চীনা স্মার্টফোন ব্র্যান্ডগুলোকেও।

আলোচনায় প্রতিষ্ঠানগুলোর টানাপোড়েন

প্রযুক্তি খাতে এ বছর সবচেয়ে আলোচিত প্রতিষ্ঠানগুলোর নাম নিতে গেলে হয়তো সবার আগে উবারের নাম নেওয়াই উচিৎ। নানা বিষয়ে সারা বছরই সংবাদ শিরোনামে জায়গা করে নিয়েছে অ্যাপভিত্তিক রাইড শেয়ারিং সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানটি।

বছরের শুরুতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ব্যবসায়িক উপদেষ্টা হিসেবে যোগ দেওয়া নিয়ে সমালোচনার মুখে পড়েন প্রতিষ্ঠানটির তৎকালীন প্রধান নির্বাহী ট্রাভিস কালানিক। ট্রাম্প প্রশাসনের অভিবাসন নীতি বিরোধী কর্মকর্তা-কর্মচারী ও ট্যাক্সি চালকদের ক্রমবর্ধান চাপের মুখে এক পর্যায়ে ট্রাম্পের ব্যবসায়িক উপদেষ্টা পরিষদ থেকে সরে দাঁড়ান তিনি।

চালক নিয়োগের জন্য প্রত্যাশিত আয় অনেক বাড়িয়ে দেখানো ও গাড়ি কেনা বা ভাড়া নেওয়ার খরচ কমিয়ে দেখানো হয়েছে- মার্কিন সরকারে এমন অভিযোগের মুখে মীমাংসার জন্য দুই কোটি মার্কিন ডলার পরিশোধে জানুয়ারিতে সম্মতি দেয় প্রতিষ্ঠানটি।

প্রতিষ্ঠানে যৌন হয়রানি, হয়রানির শিকার হওয়া কর্মীর অভিযোগ আমলে না নেওয়া, চালককে গালমন্দ করে কালানিক-এর ক্ষমা চাওয়া, সরকারি লোকদের ইচ্ছাকৃত ভাবে গাড়িতে না নেওয়া- প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে আসতে থাকে একের পর এক এমন নানা অভিযোগ। এক পর্যায়ে প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী পদ থেকে সরে আসেন এই প্রতিষ্ঠাতা সদস্য, সঙ্গে অব্যাহতি নেন কয়েকজন শীর্ষ কর্মকর্তাও। নতুন প্রধান নির্বাহী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন দারা খসরোশাহী। তাও থামেনি কালানিক-এর বিরুদ্ধে অভিযোগের স্রোত। পরিচালনা পর্ষদে থেকে ফের প্রধান নির্বাহী হিসেবে আসতে তিনি কৌশল চালাচ্ছিলেন বলে অভিযোগ ওঠে। বছরের শেষদিকে উবারের বিরুদ্ধে ৫৭ মিলিয়ন গ্রাহকের তথ্যচুরির খবর জেনেও গোপন রাখা আর প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের মধ্যে সংকেতায়িত আলাপের অভিযোগ উঠে। থাকা এসব অভিযোগ নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করেন নতুন প্রধান নির্বাহী খসরোশাহী, আগের প্রশাসনের সমালোচনাও করেন তিনি। তার মন্তব্যের পর আরও দুই শীর্ষ কর্মকর্তা পদত্যাগ করেন।

গুগলের ওয়েইমো, বিভিন্ন দেশের সরকার আর ট্যাক্সি চালক সমিতিগুলোর সঙ্গেও উবারের বিবাদ দেখা গেছে বছরের বিভিন্ন সময়। 

বছরের শুরুতেই বিড়ম্বনাইয় পড়তে হয় দক্ষিণ কোরীয় ইলেকট্রনিক জায়ান্ট স্যামসাংকে। ১৭ ফেব্রুয়ারি আটক করা হয় স্যামসাং ইলেক্ট্রনিকস-এর ভাইস প্রেসিডেন্ট লি জি ইয়ং-কে। অগাস্টে দুর্নীতির মামলায় আদালতে অভিযোগ অস্বীকার করে কাঁদেন তিনি। ডিসেম্বরে আপিলে ফের দুর্নীতির অভিযোগ অস্বীকার করেন স্যামসাং গ্রুপ-এর উত্তরাধিকারী।

এ বছর এক সময়কার ইন্টারনেট জায়ান্ট ইয়াহুকে কেনা সম্পন্ন করে ভেরাইজন। ইয়াহুর প্রধান নির্বাহী পদ থেকে বিদায় নেন মারিসা মায়ার। ইয়াহু আর এওএল-কে নিয়ে ‘ওথ’ নতুন প্রতিষ্ঠান গঠনের কথা জানায় ভেরাইজন।

এছাড়াও পেটেন্ট নিয়ে অ্যাপল-নোকিয়া বিবাদ ও চুক্তি এবং কোয়ালকম আর অ্যাপলের মধ্যকার দ্বন্দ্বের খবরও ছিল আলোচনায়।

বিটকয়েন 

ভার্চুয়াল মুদ্রা বিটকয়েনের জন্য বছরটা উল্লেখযোগ্য বলা যেতেই পারে। বছরের শুরুতে প্রতিটি মুদ্রার দাম ৯৯৭.৬৯ ডলার থাকলেও, বছরটা শেষ হয়েছে অনেক চড়া দামে। ডিসেম্বরে এ মূল্য ১৯ হাজার ডলার ছাড়িয়েছিল। শেষ হিসাবে প্রতি বিটকয়েনের দাম ছিল ১৯,০৬৯ ডলার। ইতোমধ্যে বিভিন্ন দেশ বিটকয়েন-এর মতো নিজস্ব ভার্চুয়াল মুদ্রা আনার বিষয়ে ভাবা শুরু করেছে। যদিও সম্প্রতি বিটকয়েন বাংলাদেশে বৈধ নয় জানিয়ে তা দিয়ে লেনদেন না করার নির্দেশনা দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

স্বচালিত ও বৈদ্যুতিক গাড়ি

স্বচালিত গাড়ি খাতে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর জোর এ বছর ত্বরান্বিত হয়েছে। বৈদ্যুতিক ও স্বচালিত গাড়ি খাতে সবচেয়ে বেশি আলোচনায় ছিল টেসলা। চলতি বছর উন্মুক্ত বাজারের জন্য মডেল ৩ সেডান গাড়ি উৎপাদন শুরু করে প্রতিষ্ঠানটি। নভেম্বরে এই প্রতিষ্ঠান নিয়ে আসে বৈদ্যুতিক সেমি ট্রাক। ডিসেম্বরে পিকআপ ট্রাক বানানোর ঘোষণাও দেয় তারা। এ মাসেই মঙ্গলে পাঠানোর উদ্দেশ্যে রকেটে টেসলা গাড়ি তুলে সেই ছবি ইনস্টাগ্রামে পোস্ট দিয়ে সাড়া ফেলেন টেসলা প্রধান মার্কিন ধনকুবের ও প্রকৌশলী ইলন মাস্ক। বিশ্বের সবচেয়ে বড় ব্যাটারি তৈরি আর পুয়ের্তো রিকোতে সৌর বিদ্যুৎ সরবরাহ করেও আলোচনায় আসেন তিনি।

স্বচালিত গাড়ি তৈরি খাতে কিছুটা দেরিতে এলেও, চলতি বছর এপ্রিলে অ্যাপল যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় স্বয়ংক্রিয় যান পরীক্ষার অনুমোদন পায়। জুনে এ নিয়ে প্রথমবারের মতো মুখ খুলেন অ্যাপল প্রধান টিম কুক।

জুনে স্বচালিত ট্রাক বানানোর কথা জানায় গুগল অধীনস্থ ওয়েইমো। সেপ্টেম্বরে স্বচালিত গাড়ি প্রযুক্তিতে গুগল শত কোটি ডলার খরচ করেছে বলে খবর বের হয়।

বছরের শুরুতে মার্কিন প্রশাসন স্বচালিত গাড়ি নিয়ে ভাবার কথা জানায়। মে মাসে এ গাড়ি নিয়ে পরীক্ষার অনুমোদন দেয় জার্মানি। এছাড়াও এ গাড়ি নিয়ে বিবেচনা করছে আরও কয়েকটি দেশ। লন্ডনে চালু করা হয়েছে স্বচালিত শাটল সেবা। 

টয়োটা, ফোর্ড, সুজুকি, বিএমডাব্লিউসহ অন্যান্যা গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ও এ খাতে বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে। 

মহাকাশে প্রযুক্তি

মহাকাশ প্রযুক্তি ক্ষেত্রে চমক দেখিয়েছে ইলন মাস্ক অধীনস্থ মহাকাশযান নির্মাতা প্রতিষ্ঠান স্পেসএক্স। মার্চে পুনঃব্যবহারযোগ্য রকেট দ্বিতীয়বারের মতো উৎক্ষেপণ করে সাফল্য পায় প্রতিষ্ঠানটি। অক্টোবরে তৃতীয়বারের মতো নিজেদের তৈরি ‘আংশিকভাবে পুনঃ ব্যবহৃত’ রকেট দিয়ে একটি বাণিজ্যিক যোগাযোগ কৃত্রিম উপগ্রহ উৎক্ষেপণ করে প্রতিষ্ঠানটি।

জুলাইয়ে মহাকাশে প্রদক্ষিণ শুরু করে বাংলাদেশের তৈরি প্রথম ন্যানো স্যাটেলাইট ‘ব্র্যাক অন্বেষা’।

ব্লু হোয়েল

২০১৩ সালে এক রুশ ব্যক্তির বানানো এই গেইম ২০১৭ সালে আবার আলোচনায় আসে। এটি একটি অনলাইন গেইম, যা অংশগ্রহণকারীকে মৃত্যুর পথে নিয়ে যায়। নীল তিমিরা মারা যাওয়ার আগে জল ছেড়ে ডাঙায় ওঠে যেন আত্মহত্যার জন্যই- সেই ধারণা থেকে এই গেইমের নাম হয়েছে ‘ব্লু হোয়েল’। এই গেইমে খেলোয়াড়দের বিভিন্ন কাজ সম্পন্ন করতে দেওয়া হয়, পুরো কাজের সিরিজ সম্পন্ন করার জন্য সময় থাকে ৫০ দিন। প্রতিটি কাজ সম্পন্ন হওয়ার পর একটি করে ছবি পাঠাতে হয় গেইমারকে। একদম সব শেষে চূড়ান্ত কাজ হিসেবে খেলোয়াড়কে আত্মহত্যা করতে বলা হয়। ভারতে এ গেইম খেলে একাধিক কিশোর কিশোরীর আত্মহত্যার খবরের পর, বাংলাদেশেও একই ধরনের খবর আসতে থাকে। এ নিয়ে সামাজিক মাধ্যমগুলোতে শুরু হয় আলোচনা, এক পর্যায়ে এ নিয়ে তথ্য দিতে আহ্বান জানায় বিটিআরসি। 


প্রচ

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71