সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮
সোমবার, ৯ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
৩৪ বছর পর পুরীর জগন্নাথ মন্দিরে ঘটবে সেই ঘটনা!
প্রকাশ: ০৩:১৮ pm ০৭-০৪-২০১৮ হালনাগাদ: ০৩:১৮ pm ০৭-০৪-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


দেশের অন্যতম মন্দিরগুলির মধ্যে অন্যতম পুরীর জগন্নাথদেবের মন্দির। শুধু নামেই নয়, সেটি ধনীতম মন্দিরগুলির মধ্যে একটি। বছরে কয়েক কোটি ভক্ত সমাগম হয় সেখানে।

মানত হিসাবে জগন্নাথদেবকে কেউ না কেউ দান করে থাকেন। সেই তালিকায় হিরে-সোনা তোঁ রয়েছেই। আর এই সবকিছুই চলে যায় মন্দিরের রত্ন-ভান্ডারে। যে কোনও উৎসব-অনুষ্ঠানে জগন্নাথদেব, বলরাম ও সুভদ্রাকে সাজানোর জন্য এই সমস্ত ভাণ্ডারের অলংকারই ব্যবহৃত হয়। কাউকে এই সমস্ত জায়গাতে ঢুকতে দেওয়া হয় না।
 
গত ১৯৮৪ সালে মাত্র তিনটি কক্ষ খোলা হয়েছিল পরিদর্শনের জন্য। ভান্ডারে থাকা সাতটি কক্ষের মধ্যে মাত্র তিনটেতে ঢোকার সুযোগ হয়েছিল। কিন্তু তার পরে কেটে গিয়েছে দীর্ঘ ৩৪ বছর। কেউ সেখানে পা রাখতে পারেনি। কিন্তু এবার সেই রত্ন ভান্ডারের পরিকাঠামো পরীক্ষা নিরীক্ষা করার আদেশ দিয়েছে ওড়িশা হাই কোর্ট।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সাল থেকেই ভারতের আর্কিওলজিকাল সার্ভে (এএসআই) পুরীর মন্দিরের রক্ষণাবেক্ষণের কাজ করছে। কোর্টের নির্দেশ অনুসারে, আগামী ৪ এপ্রিল জগন্নাথদেবের রত্ন ভাণ্ডারে প্রবেশ করবেন ১০ জন ব্যাক্তি। এবং সেই সময়ে মন্দিরে কোনও ভক্তকেই প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।

সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, যে দশ জন ভাণ্ডারে প্রবেশ করবেন, তার মধ্যে থাকবেন পুরী মন্দিরের গজপতি মহারাজ ও এএসআই-এর দু’জন আধিকারিক। যাদের শরীরে শুধুই গামছা ছাড়া কিছুই থাকবে বলে জানা গিয়েছে। দেওয়ালের পরিদর্শন করলেও, রত্ন ছুঁয়েও দেখতে পারবেন না কেউ। আদালতের এই নির্দেশ পাওয়া মাত্র শুরু হয়েছে কক্ষগুলিতে ঢোকার প্রস্তুতি।

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71