সোমবার, ২২ জুলাই ২০১৯
সোমবার, ৭ই শ্রাবণ ১৪২৬
 
 
৮৬ বছর পর প্রীতিলতার মরণোত্তর স্নাতক ডিগ্রি প্রদান
প্রকাশ: ০৩:০৯ pm ২৮-০৭-২০১৮ হালনাগাদ: ০৩:০৯ pm ২৮-০৭-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


৮৬ বছর পর ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনের দুই বিপ্লবী নারী প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার ও বীণা দাশকে মরণোত্তর স্নাতক ডিগ্রি প্রদান করেছে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়।

২৬ জুলাই, বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশনের হেড অব চ্যান্সেরি জামাল হোসেনের কাছে এই সনদ হস্তান্তর করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

এর আগে সনদ পেতে আবেদন করেছিল চট্টগ্রাম পরিষদ। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষ উপলক্ষে সনদ হস্তান্তরের উদ্যোগ নেওয়া হয়।

কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সোনালি চক্রবর্তী বলেন, ‘১৯৩২ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি এই ডিগ্রি পাওয়ার কথা ছিল প্রীতিলতা ও বীণা দাশের। তবে সেদিন সমাবর্তনে এই সনদ নেওয়ার মতো কেউ ছিলেন না। বাংলাদেশ ডেপুটি হাইকমিশনের কাছে তাদের সনদ তুলে দিতে পেরে গর্ববোধ করছি।’

এই সনদ চট্টগ্রামে বীরকন্যা প্রীতিলতা ওয়েদ্দেদার ট্রাস্টের হাতে তুলে দেওয়া হবে বলে জানান জামাল হোসেন।

উল্লেখ্য, প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনের এক মহান নেত্রীর নাম। অগ্নিযুগের বিপ্লবী মাস্টারদা সূর্য সেনের শিষ্য। ট্টগ্রামের ইউরোপিয়ান ক্লাবে লেখা ছিল, ‘কুকুর ও ভারতীয় প্রবেশ নিষেধ।’ ১৯৩২ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর সেই ক্লাব আক্রমণের দায়িত্বে ছিলেন প্রীতিলতা। তার দলবল নিয়ে ক্লাবটি আক্রমণ করেন এবং তার নেতৃত্বে সফলভাবে অভিযানটি পরিচালিত হয়। এ সময় পুলিশের আটক এড়াতে বীরকন্যা প্রীতিলতা পটাশিয়াম সায়ানাইড খেয়ে আত্মাহুতি দেন।

বীণা দাশ বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনে গিয়েছিলেন রিভলভার সঙ্গে নিয়ে। এরপর অনুষ্ঠানস্থলেই বাংলার তৎকালীন গভর্নর স্ট্যানলি জ্যাকসনকে লক্ষ্য করে পরপর পাঁচটি গুলি চালিয়েছিলেন। কিন্তু গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন কক্ষ থেকেই গ্রেফতার হন বীণা। ফলে তার আর কোনদিন স্নাতক ডিগ্রি নেওয়া হয়নি। এবার সেই ডিগ্রি প্রদান করল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

নি এম/
 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71