সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯
সোমবার, ৩রা আষাঢ় ১৪২৬
 
 
‌রামতীর্থ দেখাবে 'শ্রী রামায়ণ এক্সপ্রেস'
প্রকাশ: ০৫:২৯ pm ১২-০৭-২০১৮ হালনাগাদ: ০৫:২৯ pm ১২-০৭-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


রামসীতার স্মৃতি বিজড়িত এবং রামায়ণে উল্লিখিত স্থানগুলি দেখানোর জন্য শ্রী রামায়ণ এক্সপ্রেস চালু করতে চলেছে রেল মন্ত্রক। আগামী ১৪ নভেম্বর থেকে চালু হবে ওই ট্রেন। আসন সংখ্যা ৮০০। ১৬ দিনের ভারত দর্শনে জন প্রতি খরচ ১৫,১২০ টাকা। তীর্থযাত্রীদের জন্য ট্রেনে থাকবে খাবারের ব্যবস্থা। যে সব তীর্থস্থানে ট্রেন থামবে, সব জায়গাতেই আইআরসিটিসি–র তরফে তীর্থযাত্রীদের জন্য ধর্মশালায় রাত্রিবাসের ব্যবস্থা থাকছে। তাঁদের সহায়তার জন্য সফরসঙ্গী হিসেবে থাকবেন আইআরসিটিসি–র টুর ম্যানেজাররা। তীর্থযাত্রীদের যাতায়াত এবং মালপত্র পৌঁছে দেওয়া, প্রতিটি স্টপে সাইটসিয়িং–এর দায়িত্বও আইআরসিটিসি–র। 

সফর শুরু হবে দিল্লির সফদরজঙ্গ স্টেশন থেকে। প্রথম স্টপ, উত্তর প্রদেশে রামের জন্মস্থান অযোধ্যায়। তারপর হনুমানগড়ি, রামকোট, কনক ভবন মন্দির ছুঁয়ে ট্রেন যাবে ভরতের তপস্যাস্থল নন্দীগ্রামে। বর্তমান ফৈজাবাদের কাছে অবস্থিত নন্দীগ্রামেই বনবাস থেকে রামের ফেরা পর্যন্ত তপস্যা করেছিলেন কৈকেয়ীপুত্র।

পরবর্তী স্টপ বিহারের সীতামাঢ়ি। কথিত আছে, এখানেই সীতাকে খুঁজে পেয়েছিলেন মিথিলানরেশ শীলধ্বজ জনক। তারপর জনকরাজার রাজধানী জনকপুর হয়ে ট্রেন ফের যাবে উত্তর প্রদেশের বারাণসীতে। সেখান থেকে প্রয়াগ হয়ে ট্রেন পৌঁছবে শৃঙ্গারপুর, যেখানে নিষাদ রাজের নৌকায় সীতা এবং লক্ষ্মণকে নিয়ে গঙ্গা পেরিয়েছিলেন রাম। এরপরের গন্তব্য মধ্যপ্রদেশের চিত্রকুট এবং নাসিক। বনবাসের বেশ কিছু বছর নাকি এখানে কাটিয়েছিলেন রামসীতা। তারপর ট্রেন ঢুকবে কর্নাটকের হাম্পিতে। বনবাসের শেষের দিকে দাক্ষিণাত্যের এই অঞ্চলেই ছিলেন রামসীতা, লক্ষ্মণ। ভারত ভূখণ্ডে শ্রী রামায়ণ এক্সপ্রেসের সর্বশেষ স্টেশন তামিলনাড়ুর রামেশ্বরম। কথিত আছে, সাগর পেরিয়ে লঙ্কা যাওয়ার আগে এখানেই মহাদেবের আরাধনা করেছিলেন রাম। তাঁর হাতে তৈরি শিবলিঙ্গই দ্বাদশ জ্যোতির্লিঙ্গের অন্যতম রামালিঙ্গম বা রামেশ্বরমলিঙ্গ নামে প্রচলিত।

দ্বিতীয় পর্যায়ে রামায়ণের যুদ্ধক্ষেত্র শ্রীলঙ্কা ভ্রমণ। তবে দু'টি ভ্রমণ একই রামনাম স্মরণে হলেও ব্যবস্থা সম্পূর্ণ আলাদা। খরচও ভিন্ন। ভারত থেকে বিমানযোগে শ্রীলঙ্কা। সেখানে রামের নামের সঙ্গে জড়িত ক্যান্ডি, নুয়ারা, এলিয়া, কলম্বো ও নেগোম্বো ঘোরানোর ব্যবস্থা থাকছে একই প্যাকেজে। এই প্যাকেজে জনপ্রতি খরচ পড়বে ৪৭ হাজার ৬০০ টাকা।

আইআরসিটিসি সূত্রে জানা গিয়েছে, রামকে নিয়ে পৌরাণিক কাহিনিতে নানা স্থান হিন্দুদের তীর্থক্ষেত্র বলে পরিচিত। সেই সব দর্শনীয় স্থানকে একই সূত্রে বেঁধে ভ্রমণের এই প্যাকেজ করেছে আইআরসিটিসি। কাহিনির প্রধান উত্‍স যেহেতু মহাকাব্য রামায়ণে রয়েছে তাই এই ট্রেনের নামকরণ হয়েছে 'শ্রী রামায়ণ এক্সপ্রেস'। ট্রেনের এই নামের সঙ্গে পরিবেশের সামঞ্জস্য রাখতে ট্রেনটির দেওয়ালে রামের নানা কাহিনির ভিনাইল র‌্যাপিং থাকবে। পুরো প্যাকেজটিতে যাতে সাধারণ তীর্থযাত্রীরা স্বাচ্ছন্দ্যে ভ্রমণের সুযোগ পান সেজন্য তদারকির পুরো দায়িত্বে থাকবেন আইআরসিটিসির নিজস্ব ইন্সপেক্টর। তীর্থক্ষেত্রের নানা কাহিনি তুলে ধরবেন গাইডরা। পুরাণের রামচন্দ্রকে ভালভাবে জানার পাশাপাশি ভ্রমণের বিশেষ সুযোগ করে দিতেই এই পরিকল্পনা নিয়েছে রেল।
 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71