মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯
মঙ্গলবার, ১লা শ্রাবণ ১৪২৬
 
 
আর্থার কোনান ডয়েল
প্রকাশ: ১২:৫৬ pm ০৭-০৭-২০১৫ হালনাগাদ: ১২:৫৬ pm ০৭-০৭-২০১৫
 
 
 



গোয়েন্দা সাহিত্যে বিশ্বজোড়া জনপ্রিয় নাম আর্থার কোনান ডয়েল। তাঁর নির্মিত চরিত্র শার্লক হোমস এখনো জীবন্ত হয়ে ধরা দেয়। তিনি একাধারে ইতিহাসবিদ, ক্রীড়াবিদ, সমর সাংবাদিক, শিকারি, ডাক্তার, কবি, ঔপন্যাসিক ও ছোটগল্পকার ছিলেন।

তাঁর নিজের জীবনও ছিল বহুমাত্রিক ও রোমাঞ্চকর। জন্ম ১৮৫৯ সালের ২২ মে স্কটল্যান্ডের এডিনবরায়। বাবা সাইগার হোমস, মা ভায়েলেট শেরিন ফোর্ড। বাবার ইচ্ছা ছিল সন্তান ইঞ্জিনিয়ার হবে। কিন্তু শার্লক হয়ে গেলেন তৎকালীন বিশ্বের বিশ্বখ্যাত গোয়েন্দা কাহিনী লেখক।

আর্থার এডিনবরা বিশ্ববিদ্যালয় মেডিক্যাল স্কুলে চিকিৎসাবিজ্ঞানে পড়াশোনা করেন। চিকিৎসাবিজ্ঞান চর্চার ফাঁকে তিনি শার্লক হোমস সিরিজ লিখতে শুরু করেন।

শার্লক হোমসকে নিয়ে চারটি উপন্যাস ও ৫৬টি ছোট গল্প লিখেছেন ডয়েল। তাঁর প্রথম সাফল্য ছিল 'আ স্টাডি ইন স্কারলেট'। এটি ১৮৮৭ সালে বিটনস ক্রিসমাস অ্যানুয়ালে প্রকাশিত হয়।

প্রথমে এ উপন্যাসে হোমসের নাম ছিল শেরিনফোর্ড হোমস। পরে তা পরিবর্তন করে রাখা হয় শার্লক হোমস।

১৮৯০ সালে 'দ্য সাইন অব ফোর' প্রকাশিত হলে ডয়েল চিকিৎসাবিদ্যা ছেড়ে লেখালেখিতে পুরোমাত্রায় আত্মনিয়োগ করেন।

তিনি অনেক গল্প, কল্পকাহিনী ও ইতিহাসকেন্দ্রিক রোমাঞ্চ কাহিনী লিখলেও শার্লক হোমসকে নিয়ে লেখা গোয়েন্দা কাহিনীগুলোই তাঁকে বিশ্বজোড়া

খ্যাতি এনে দেয়। একসময় একঘেয়েমি হচ্ছে ভেবে ডয়েল 'হিজ লাস্ট বো' গল্পে হোমসকে মেরে ফেলেন। পরে পাঠকের দাবির মুখে চরিত্রটিকে ফিরিয়ে আনেন। রহস্য গল্পে ডয়েলের অনুপ্রেরণা ছিল এডগার এলান পো, জুলিস ভেরনি ও রবার্ট লুইস স্টিভেনসন।

আর আগাথা ক্রিস্টিসহ পরবর্তীকালের অনেক কল্পকাহিনী লেখককে তিনি প্রভাবিত করেছেন। গত এক শতকে চলচ্চিত্র ও নাটকে বারবার চিত্রায়িত হয়েছে শার্লক হোমস।

বাস্তব জীবনেও দু-দুবার গোয়েন্দাগিরি করে অন্যায়ভাবে দোষী সাব্যস্ত ব্যক্তিদের নির্দোষ প্রমাণ করতে সক্ষম হন ডয়েল।

বোয়েরে যুদ্ধের সময় দক্ষিণ আফ্রিকান এক মাঠ-চিকিৎসাকেন্দ্রে অবদান রাখার জন্য ১৯০২ সালে নাইট উপাধিতে ভূষিত হন তিনি।

১৯৩০ সালের ৭ জুলাই এই খ্যাতিমান লেখক ইংল্যান্ডের সাসেক্সে মৃত্যুবরণ করেন।


এইবেলা ডট কম/এইচ আর
 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71