বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮
বৃহঃস্পতিবার, ১লা অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
মধুচন্দ্রিমা মধুর হোক এই পাঁচ গন্তব্যে
প্রকাশ: ১২:৫৬ pm ২৭-১১-২০১৬ হালনাগাদ: ১২:৫৬ pm ২৭-১১-২০১৬
 
 
 


লাইফস্টাইল ডেস্ক : সামনেই বিয়ে৷ বিয়ের যাবতীয় তোড়জোড়, পোশাক, ভেনিউ, ফোটোগ্রাফার, মেক-আপ আর্টিস্ট, তত্ত্ব, কেটারিং-এর সেরাটা খুঁজে বের করা হয়ে গিয়েছে ইতিমধ্যেই৷

এত কিছুর মাঝে হয়তো মধুচন্দ্রিমার প্ল্যানিংটা করা হয়েই ওঠেনি৷ জীবনের সবচেয়ে মেমোরেবল ট্রিপ-এর প্ল্যানে অনেকেই বেশ বেগ পান৷ বিদেশে যাওয়ার প্রয়োজন নেই, ভারতেই এমন ডেস্টিনেশন রয়েছে, যা শুধু এই স্পেশাল ট্রিপকে চিরস্মরণীয় করে রাখবে৷ নিরিবিলিতে কাটিয়ে আসতে পারবেন কোয়ালিটি টাইম৷ তেমনই কিছু জায়গার হদিশ রইল এবার৷

গোয়া:

goa_web


গোয়ার সৈকতের সঙ্গে নতুন করে আলাপ করানোর কোনও প্রয়োজন পড়ে না৷ রোমান্টিক থেকে হ্যাপেনিং- যেরকম বিচ চাইবেন, তেমনটিই পাবেন৷ কালাঙ্গুটে, বাগা, আরামবোল- তালিকা বিরাট৷ সঙ্গে চাইলে রয়েছে পর্তুগিজ স্থাপত্যের নিদর্শনও৷ নৈশভোজের পর ঘুরে আসতে পারেন টিটোস ও মাম্বোস নাইট ক্লাব, চাইলে বিচ সংলগ্ন শ্যাকেও কাটাতে পারেন সময়৷ চাপোরা ফোর্টে সূর্যাস্ত দেখতে একেবারেই ভুলবেন না৷ হানিমুনের মতো রিল্যাক্সড ট্রিপে নিতে পারেন স্পেশাল মাসাজও৷
কী খাবেন:
কন্টিনেন্টাল, অথেনটিক গোয়ানিজ খাবার ট্রাই করুন৷ বিয়ার এখানে জলের চেয়েও সস্তা৷ লোকাল ক্যাশিউ বা কোকোনাট ফেনি ট্রাই করুন৷ চিকেন, মাটন ভুলে সিফুডে মজে থাকুন৷
কোথায় থাকবেন:
তাজ এক্সোটিকা গোয়া, দ্য লীলা গোয়া, গোয়া ম্যারিয়ট রিসর্ট অ্যান্ড স্পা, ভিভান্তা বাই তাজ, হুইসপারিং পামস বিচ রিসর্ট৷
কীভাবে যাবেন:
কলকাতা থেকে ফ্লাইটে পৌঁছে যান ডাবোলিম এয়ারপোর্ট৷ মুম্বই হয়ে কানেকটিং ফ্লাইটে সময় লাগবে ছ’ঘণ্টা৷ এছাড়া অমরাবতী এক্সপ্রেসে পৌঁছে যান গোয়া, হাওড়া থেকে ভাস্কো দা গামা পৌঁছতে সময় লাগবে ৩৭ ঘণ্টা৷
কী কিনবেন:
বিভিন্ন ধরনের মশলাপাতি, লোকাল লিকার, ড্রেস, হরেক স্মারক দ্রব্য৷

উদয়পুর:

honeymoon1_web
 

নিরিবিলিতে রাজার মতো বহাল তবিয়তে কয়েকটা দিন কাটানোর জন্য পাড়ি দিন উদয়পুর৷ সেখান থেকে ড্রাইভ করে পৌঁছে যান মাউন্ট আবু৷ ঘুরে আসুন সানসেট পয়েন্ট৷ নাক্কি লেকের এই অ্যামবিয়েন্স দারুণ রোমান্টিক৷ উদয়পুরের সিটি প্যালেস ও উদয়পুর ঘিরে থাকা লেকের সৌন্দর্য অবর্ণনীয়৷
কী খাবেন:
অথেনটিক রাজস্থানি খাবার লাল মাস অবশ্যই চেখে দেখুন৷
কোথায় থাকবেন:
দ্য ওবেরয় উদয়ভিলা, তাজ লেক প্যালেস, রামাডা উদয়পুর রিসর্ট অ্যান্ড স্পা৷
কী কিনবেন:
মিনাকারি গয়না, জেমস্টোন পেন্টিং, অক্সিডাইজড জুয়েলারি, তামার জিনিস, মার্বেলের জিনিসপত্র, অ্যাণ্টিক উডেন ফার্নিচার, বাঁধনির শাড়ি ও দোপাট্টা৷
কীভাবে যাবেন:
কলকাতা থেকে মুম্বই অথবা দিল্লি হয়ে কানেকটিং ফ্লাইটে সময় লাগবে ৫ ঘণ্টা৷ অনন্যা সুপারফাস্ট এক্সপ্রেস ও শালিমার-উদয়পুর সিটি উইকলি এক্সপ্রেস৷ ২টি ট্রেনই ছাড়বে শিয়ালদহ থেকে৷ এছাড়া আরও ট্রেনও রয়েছে৷

কুমারাকোম:

honeymoon2_web
 

কেরলের কোট্টায়ামের কাছে ছোট্ট গ্রাম কুমারাকোম৷ এখানকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য চোখ-ধাঁধানো৷ ছিমছাম, নিরিবিলি প্রকৃতির কোলে প্রিয়জনের সঙ্গে সময় কাটানোর জন্য আদর্শ৷ সাইট সিয়িং, বোটিং, ফিশিং-এর ব্যবস্থা রয়েছে এখানে৷ শীতে এখানে উড়ে আসে নানান পরিযায়ী পাখি৷ এখান থেকে ফেরিতে ঘুরে আসতে পারেন আলেপ্পি৷
কোথায় থাকবেন:
কুমারাকোম লেক রিসর্ট, দ্য জুরি কুমারকোম, তাজ গার্ডেন রিট্রিট, হুইসপারিং পামস৷
কী খাবেন:
আপ্পাম, কাপ্পা, কারিমিন (এক ধরনের মাছ), চিংড়ি, কাঁকড়া, স্কুইড৷
কী কিনবেন:
হ্যান্ডক্রাফটেড মার্কেডাইজ, ক্যামেল বোন কার্ভিং, গ্রাস ম্যাট৷
কীভাবে যাবেন:
কলকাতা থেকে ফ্লাইটে পৌঁছে যান এর্নাকুলাম৷ সেখান থেকে গাড়িতে পৌঁছতে হবে কুমারাকোম৷ এছাড়া ট্রেনে কোট্টায়াম হয়ে পৌঁছতে হবে কোট্টায়াম৷

কুর্গ:

coorg_web
 

‘স্কটল্যান্ড অফ ইন্ডিয়া’ নামে খ্যাত এই জায়গা হানিমুন ডেস্টিনেশন হিসেবে আদর্শ৷ কুর্গের চারপাশে জুড়ে রয়েছে ঘন সবুজ প্রকৃতি, অরণ্য, পাহাড়ের গা ঘেঁষে ছড়িয়ে থাকে মশলা ও কফির প্ল্যানটেশন৷ কুর্গের মাদিকেরি অবশ্যই ঘুরে দেখুন৷ একসময় ব্রিটিশ শাসনে থাকা এই জায়গায় এখনও ছড়িয়ে আছে লাল-টাইল-এর বাংলো৷ এখানকার কফি চাষ শুরু হয় ব্রিটিশ আমলে৷ দেখে আসুন অ্যাবি ফলস, নামড্রোলিং মনাস্ট্রি, নাগারহোল জাতীয় উদ্যান, ইরুপ্পু ফল ও মাদিকেরি কেল্লা৷
কীভাবে যাবেন:
কলকাতা থেকে সরাসরি কুর্গের কোনও ট্রেন নেই৷ মাইসোর হয়ে পৌঁছতে হবে কুর্গ৷ কুর্গের সবচেয়ে কাছের এয়ারপোর্ট ম্যাঙ্গালোর৷
কোথায় থাকবেন:
মাদিকেরিতে রয়েছে কুর্গ ক্লে স্টে, কার্নি কুটির, জঙ্গল ট্রেলস হোমস্টে৷ এছাড়া হোটেল রয়েছে বিভিন্ন রেঞ্জের৷ অরেঞ্জ কান্ট্রি রিসর্ট, হোটেল কুর্গ ইন্টারন্যাশনাল৷
কী খাবেন:
কোডাভা এখানকার লোকাল কুইজিন৷ এখানকার এক ধরনের সুগন্ধী চাল সান্নাক্কি চেখে দেখুন৷ স্টিমড ফিশ (পাট্টুস), পর্ক, কাঁকড়ার নানারকম পদ৷
কী কিনবেন:
এখানকার কফি, বিভিন্ন ধরনের মশলা, কমলালেবু, চকোলেট ও হোমমেড ওয়াইন৷

ম্যাকলেয়ডগঞ্জ:

honeymoon3_web
 

হিমাচলের ধর্মশালার কাছে নিরিবিলি হিলস্টেশন ম্যাকলেয়ডগঞ্জ৷ তিব্বতি ও ব্রিটিশ ঐতিহ্যের মেলবন্ধনে গড়ে উঠেছে অপূর্ব সুন্দর এই পাহাড়ঘেরা বসতি৷ বেশ কয়েকটি বিখ্যাত মনাস্ট্রি রয়েছে এখানে– যেমন নামগিয়াল মনাস্ট্রি, সুগলাগখাং মনাস্ট্রি৷ দেখে আসুন ভাগসু ফল৷ যেতে পারেন ৯ কিলোমিটার বিস্তৃত ট্রেকে, যাকে বলা হয় ট্রাইউন্ড৷ ১৮৫২ সালে নিও-গথিক স্থাপত্যের ধাঁচে তৈরি চার্চ অফ সেন্ট জনস ইন দ্য ওয়ান্ডারনেস দেখার মতো৷
কোথায় থাকবেন:
হোটেল মাউন্ট ভিউ, হোটেল স্যাফায়ার, বেলা হাইটস, হোটেল উড কাসল৷
কী খাবেন:
তিব্বতি কুইজিনের মোমো, থুকপা, টিঙ্গমো, বাকলেব (তিব্বতি শিঙাড়া)৷ এছাড়া বিভিন্ন বেকড আইটেম যেমন লেমন টার্ট, কেক, চকোলেট মুজ৷ রয়েছে প্রচুর ইতালীয় রেস্তোরাঁ৷
কীভাবে যাবেন:
কলকাতা থেকে ফ্লাইটে দিল্লি হয়ে সেখান থেকে অন্য ফ্লাইটে পৌঁছে যান ধর্মশালা৷ ধর্মশালা থেকে গাড়ি করে পৌঁছান ম্যাকলেয়ডগঞ্জ৷
কী কিনবেন:
তিব্বতি হ্যান্ডিক্রাফটস, সিলভার জুয়েলারি, অষ্টধাতুর জিনিস, মাস্ক৷

এইবেলাডটকম/এফএআর

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71