eibela24.com
বুধবার, ১৯, সেপ্টেম্বর, ২০১৮
 

 
উমরা পালন শেষে দেশে ফেরা হলো না নিলয়ও তার স্ত্রী,সন্তানের
আপডেট: ০৯:২৫ pm ৩১-১২-২০১৭
 
 


সৌদি আরবের মক্কায় পবিত্র উমরা শেষে সড়ক দুর্ঘটনায় স্ত্রী ও দুই শিশুছেলের মৃত্যুর পর ইতালি প্রবাসী কামরুল ইসলাম নিলয়ও চলে গেলেন না ফেরার দেশে। 

শনিবার সন্ধ্যায় মক্কার বাদশাহ আবদুল আজিজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নিলয়ের মৃত্যু হয়। এ নিয়ে দুর্ঘটনায় একই পরিবারে চারজন নিহত হলেন। গত বৃহস্পতিবার উমরা পালন শেষে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে মদিনা যাচ্ছিলেন নিলয়। পাহাড়ি পথে তাদের প্রাইভেটকারটি খাদে পড়ে যায়। ঘটনাস্থলেই নিহত হন ইতালিপ্রবাসী কামরুল ইসলাম নিলয়ের স্ত্রী তানিয়া হোসেন (৩০) এবং তাঁদের ছেলে ইউসা হোসাইন (৮) ও আযান হোসেন (৩)। মারাত্মক আহত অবস্থায় নিলয়কে মক্কার বাদশাহ আবদুল আজিজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিলো। চিকিৎসাধীন অবস্থায়  হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়। জুয়েল নামে নিলয়ের এক স্বজন ওই গাড়ি চালাচ্ছিলেন। তিনিও আহত হয়েছেন।

এদিকে দুর্ঘটনার পর থেকে তানিয়া ও নিলয়ের পরিবারে চলছে শোক।  তাদের মৃত্যু মেনে নিতে পারছেন না দুই পরিবারের কেউই। সেই শোকের বোঝা আরো ভারি করলেন নিলয়। 

জেদ্দায় বাংলাদেশ কনস্যুলেটের লেবার কাউন্সেলর আমিনুল ইসলাম বলেন, নিহত কামরুল ইসলাম নিলয়দের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদরের পৌর এলাকার মুন্সেফপাড়ায়। নিহতদের মরদেহ মক্কার আল-হেরা ও আল-নূর হাসপাতালের হিমঘরে রাখা হয়েছে বলে ও জানান তিনি।

১০ বছর আগে তানিয়ার সঙ্গে বিয়ে হয় নিলয়ের। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ উপজেলার তারুয়া গ্রামের শালুকপাড়ার ইলিয়াস মাস্টারের ছেলে নিলয়। আর তানিয়ার বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের মুন্সেফপাড়া মহল্লায়। বিয়ের পরপরই তানিয়াকে নিয়ে ইতালিতে পাড়ি জমান নিলয়। সেখানেই একটি শিপইয়ার্ডে ঠিকাদারের কাজ করতেন। গত ২৭ ডিসেম্বর স্ত্রী-সন্তান নিয়ে উমরা পালনের জন্য সৌদি আরব যান নিলয়। উমরা পালন শেষে আজ রবিবার তাদের দেশে ফেরার কথা ছিল।
 

নি এম/