eibela24.com
মঙ্গলবার, ১৮, সেপ্টেম্বর, ২০১৮
 

 
 ‘রংপুরে হিন্দুদের বাড়িঘরে হামলা পূর্বপরিকল্পিত’ 
আপডেট: ১১:২২ am ২০-০১-২০১৮
 
 


রংপুরের পাগলাপীর এলাকার ঠাকুরপাড়ায় হিন্দুবাড়িতে হামলা-অগ্নিসংযোগের ঘটনায় নিজের সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন ঘটনার মূল আসামি প্রকৌশলী ফজলার রহমান।

বৃহস্পতিবার রংপুর চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে অত্যন্ত গোপনীয়তার মধ্য দিয়ে এই জবানবন্দি গ্রহণ করা হয় বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান ও পিপি রথীশ চন্দ্র ভৌমিক।

তারা জানান, হিন্দুদের বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ পূর্বপরিকল্পিত ছিল বলে জবানবন্দিতে ফজলার জানায়। অগ্নিসংযোগের ঘটনায় গঙ্গাচড়া থানায় মামলার প্রকৌশলী ফজলার রহমানকে গ্রেফতার করে দু-দফা রিমান্ডে নেয় পুলিশ। 

ফেসবুকে ধর্মীয় অবমাননার অভিযোগ এনে গত ৬ নভেম্বর ঠাকুরপাড়ার প্রয়াত খগেন রায়ের ছেলে টিটু রায়ের বিরুদ্ধে রংপুর সদর উপজেলার খলেয়া ইউনিয়নের সলেয়াশাহ গ্রামের রাজু মিয়া গঙ্গাচড়া থানায় তথ্যপ্রযুক্তি আইনে একটি মামলা করেন। এরপর ১০ নভেম্বর টিটু রায়ের ফাঁসি দাবিতে সলেয়াশাহ বাজারে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করে স্থানীয়রা। পরে কয়েক হাজার মানুষ ঠাকুরবাড়ি গ্রামে হিন্দু সম্প্রদায়ের ১৪টি বাড়ি পুড়িয়ে দেয় এবং ভাংচুর ও লুটপাট করে আরও ১৫টি বাড়ি।

এসব ঘটনার সঙ্গে রংপুর জেলা পরিষদের প্রকৌশলী ফজলার রহমান জড়িত ছিলেন। তার ভিডিও ফুটেজ পুলিশের কাছে রয়েছে। এ ঘটনায় গঙ্গাচড়া ও কোতোয়ালি থানায় দুটি মামলা হয়। মামলা দুটি তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয় ডিবির ওপর। দুটি মামলায় ৮৪ জন গ্রেফতার হয়। এর মধ্যে জামায়াত-বিএনপির লোকজনই বেশি বলে ডিবির ওসি শরিফুল ইসলাম জানান। 

মামলার পরপরই ফজলার আত্মগোপন করেন। ২১ ডিসেম্বর ঢাকার শ্যামলী এলাকা থেকে ডিবির একটি দল তাকে গ্রেফতার করে রংপুরে নিয়ে আসে।

প্রচ