eibela24.com
বুধবার, ২৬, সেপ্টেম্বর, ২০১৮
 

 
হিন্দুদের ৩৩ শতাংশ জমি দখল করল ভূয়া কাজ দিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান
আপডেট: ১২:৫৫ pm ২৯-০১-২০১৮
 
 


ঝালকাঠির কাঠালিয়া উপজেলার আওরাবুনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. কামরুজ্জান নকীবের বিরুদ্ধে ভুয়া ওয়ারিশ সনদ দিয়ে ভূমি দস্যুদের হিন্দু পরিবারের সম্পত্তি দখল করতে সহায়তা করার অভিযোগে উঠেছে। সোমবার দুপুরে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম ঝালকাঠি জেলা শখা কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে করে হিন্দু পরিবারের দুই সহোদর এ অভিযোগ করেন। এ সময় উপজেলার মৃত সুরেন্দ্র নাথ মিস্ত্রীর দুই ছেলে পরিমল চন্দ্র মিস্ত্রী ও পরীক্ষিত চন্দ্র মিস্ত্রী কান্নায় ভেঙে পড়েন।

সংবাদ সম্মেলনে তারা বলেন, কাঠালিয়া উপজেলার আওরাবুনিয়া ইউনিয়নের জে এল-৩১’র ৪টি খতিয়ানের ১২টি দাগের তাদের ৩৩ শতাংশ পৈতৃক সম্পত্তি ভিপি তালিকভুক্ত হয়। পরে সরকারি ঘোষণা অনুযায়ী সম্পত্তি অবমুক্তির জন্য চেয়ারম্যানের কাছ থেকে ওয়ারিশ সনদ নিয়ে আদালতে মামলা দায়ের করলে ঝালকাঠি জেলা ও দায়রা জজ আদালত পরিমল চন্দ্র মিস্ত্রী ও পরীক্ষিত চন্দ্র মিস্ত্রীর পক্ষে রায় দেন। রায়ের আলোকে কাঠালিয়া ভূমি অফিস তাদের নামে ওই ৩৩ শতাংশ জমি রেকর্ড করে দেয়। এর কিছুদিন পরে আওরাবুনিয়া গ্রামের মৃত বঙ্কিম চন্দ্র বিশ্বাসের স্ত্রী মঞ্জু রানী বিশ্বাস ও পুত্র বিশ্বজিত বিশ্বাসের বংশ পরিবর্তন করে মিস্ত্রী বংশ লাগিয়ে ওয়ারিশ সার্টিফিকেট দেন ইউপি চেয়ারম্যান মো. কামরুজ্জান নকীব। যে ওয়ারিশ সনদে ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্যের কোনো স্বাক্ষর নেই। সেই সনদ পেয়ে তারা চেয়ারম্যানের সহায়তায় নিরীহ অসহায় পরিমল চন্দ্র মিস্ত্রী ও পরীক্ষিত চন্দ্র মিস্ত্রীর অদালতের রায়ে পাওয়া ৩৩ শতাংশসহ তাদের আরও ১৯ শতাংশ মোট ৫২ শতাংশ পৈতিৃক সম্পত্তি জবর দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে বলে সংবাদ সম্মেলনে তারা উল্লেখ করেন।

প্রচ