eibela24.com
বুধবার, ১৯, সেপ্টেম্বর, ২০১৮
 

 
বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক ঐতিহাসিক : শ্রিংলা
আপডেট: ০৪:৫৫ pm ০২-০৪-২০১৮
 
 


বাংলাদেশ ও ভারতের সম্পর্ক ঐতিহাসিক বলে উল্লেখ করেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা।

তিনি বলেন, ১৯৭১ সালে ভারতীয় সেনা ও বাংলাদেশি মুক্তিযোদ্ধারা একসঙ্গে যুদ্ধ করেছিলেন, রক্ত দিয়েছিলেন। এরপরই জন্ম হয় বাংলাদেশের। তাই দুই দেশের সম্পর্ক ঐতিহাসিক।

ভারত সরকারের অর্থায়নে রাজশাহীতে চলমান কয়েকটি উন্নয়ন প্রকল্প সোমবার পরিদর্শনে এসে তিনি এ কথা বলেন।

শ্রিংলা বলেন, রাজশাহী ভারতের প্রতিবেশি শহর। এই শহরের উন্নয়নে ভারত সরকার প্রকল্প নিয়েছে। এ সব প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে পেরে তারা আনন্দিত। বাংলাদেশ-ভারতের এই সম্পর্ক চিরকাল অটুট থাকবে।

রাজশাহী শহরের উন্নয়নে ভারত সরকার ২১ কোটি ৪৫ লাখ টাকা দিয়েছে রাজশাহী সিটি করপোরেশনকে (রাসিক)। ‘সামাজিক, সাংস্কৃতিক, পরিবেশ ও প্রত্মতত্ত্ব অবকাঠামো উন্নয়ন সাধন ও সংরক্ষণের মাধ্যমে রাজশাহী নগরীর টেকসই উন্নয়ন’ প্রকল্পের আওতায় এই টাকা ব্যয় করছে রাসিক। এতে সংস্কার হচ্ছে পুরনো মঠ, লেক ও পুকুর। নির্মাণ হচ্ছে দৃষ্টিনন্দন ফুটপাত এবং গ্রন্থাগার ভবন। এ সব কাজ পরিদর্শনে আসেন হর্ষবর্ধন শ্রিংলা। এ সময় রাজশাহী সদর আসনের এমপি ফজলে হোসেন বাদশা, সিটি মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল ও রাজশাহীতে নিযুক্ত ভারতের সহকারী হাইকমিশনার অভিজিৎ চট্টোপাধ্যায় তার সঙ্গে ছিলেন।

সকালে প্রথমে হর্ষবর্ধন শ্রিংলা নগরীর ভদ্রা এলাকায় ‘পদ্মা পারিজাত লেক’ পরিদর্শনে যান। ৩ কোটি ৮১ লাখ টাকা ব্যয়ে সংস্কার হচ্ছে লেকটি। এরপর তিনি নগরীর তালাইমারী এলাকায় ‘পদ্মা সাধারণ গ্রন্থাগার’ ভবন নির্মাণ কাজ দেখতে যান। ২ কোটি ৭৮ লাখ টাকায় নির্মিত হচ্ছে ভবনটি। পরে হর্ষবর্ধন শ্রিংলা নগরীর শ্রীরামপুর এলাকায় ফুটপাত নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করেন। ১৩ কোটি ৬৮ লাখ টাকা ব্যয়ে ওই এলাকার রাস্তার দুইপাশে নির্মিত হচ্ছে ফুটপাতটি।

এটি পরিদর্শন শেষে হর্ষবর্ধন শ্রিংলা নগরীর টি-বাঁধে গিয়ে পদ্মাপাড়ে কিছু সময় কাটান। তিনি সেখানে বধ্যভূমিতে ফুল দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। এরপর নগরীর সপুরা এলাকায় মঠ ও পুকুর সংস্কার কাজ দেখতে যান। সেখানে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। তখন কাজের অগ্রগতি নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন শ্রিংলা।

রাজশাহী-কলকাতা ট্রেন চালুর বিষয়ে সাংবাদিকরা জানতে চাইলে শ্রিংলা বলেন, রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশার পরামর্শে তারা রাজশাহী থেকে মালদা হয়ে কলকাতা পর্যন্ত মৈত্রী ট্রেন চালুর উদ্যোগ নিয়েছেন। এ নিয়ে দুই দেশের রেলপথ মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাবনা গেছে। এটির কারিগরি প্রস্তুতি শেষ হলে ট্রেন চালু হবে। দুই দেশের পর্যটন ও ব্যবসা-বাণিজ্যের জন্য এটি গুরুত্বপূর্ণ।


আরপি