eibela24.com
মঙ্গলবার, ১১, ডিসেম্বর, ২০১৮
 

 
নিপা ভাইরাস কি? এর লক্ষণগুলো কি কি? 
আপডেট: ০৩:০৭ pm ২৫-০৫-২০১৮
 
 


নিপা বা নিভ প্রধানত বাদুর জাতীয় পশুর থেকেই ছড়ায়। নিপা অপেক্ষাকৃত নতুন ভাইরাস যা অতি সহজেই বাদুর জাতীয় তৃণভোজী প্রাণীর থেকে মানুষের দেহে প্রবেশ করে। শুধুমাত্র বাদুর নয়, নিপা শুয়োরের বর্জ্র থেকেও ছড়ায়।

১৯৯৮ সালে মালয়েশিয়ার প্রথম এই ভাইরাসের প্রকোপ দেখা দেয়। সেখানে বাড়ির পোষ্য কুকুর, বেড়াল, ঘোড়া, ছাগলের দেহে এই ভাইরাসের উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। ওই অঞ্চলে প্রতিটি বাড়িতেই শুয়োর প্রতিপালন হয়। 

গবেষণার পর দেখা যায়, সেই শুয়োরদের থেকেই নিপার প্রভাব ছড়িয়েছে পোষ্যদের দেহে। এরপর পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করে।

চিকিৎসকদের মতে, নিপা ভাইসারের আক্রমণে মৃত্যুর আশঙ্কা শতকরা ৭০ শতাংশ। সাধারণভাবে প্রথমে জ্বর এবং মাথা যন্ত্রণা ও ঝিমুনিই এই রোগের লক্ষণ। পরবর্তী পর্যায়ে জ্বর বাড়ে ও সেই সঙ্গে স্মৃতিশক্তি হারিয়ে ফেলেন রোগী। এরপর ধীরে ধীরে কোমাতে চলে যায় সে। আর এরপর মৃত্যু অনিবার্য।

এখনও পর্যন্ত এই রোগের চিকিৎসা বা প্রতিষেধক বাজারে আসেনি। ফলে, এর প্রকোপ সেভাবে আটকানো সম্ভব হয় না। তবে, এই নিয়ে বিস্তর গবেষণা শুরু হয়েছে বিশ্বজুড়ে।

২০০৪ সালে নিপা ভাইরাস থাবা বসায় বাংলাদেশে। সেবার ৩৩ জনের মৃত্যু হয় এর প্রভাবে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রিপোর্ট অনুসারে, এখনও পর্যন্ত নিপার প্রভাবে ৪৭৭ জন আক্রান্ত হয়েছেন। যার মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২৫২ জনের।

কারা আক্রান্ত হতে পারেন নিপা ভাইরাসে?

যারা নিয়মিত শুয়োরের মাংস খান বা শুয়োরের খামারে কাজ করেন অথবা যারা ফল চাষ করেন তার সহজেই নিপা ভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারেন। এছাড়াও বাদুরে খাওয়া ফল খেলে বা নিপায় আক্রান্ত হয়েছেন এমন ব্যক্তির সংস্পর্শে এলেও এই ভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারেন। তাই সকলেরই সাবধান থাকা উচিত।

নিপা ভাইরাসের লক্ষণগুলো কী কী?

নিপা ভাইরাসে আক্রান্ত হলে প্রাথমিক পর্যায়ে বিশেষ কোনও লক্ষণ বোঝা যায় না। জ্বর, মাথা ধরা, পেশীর যন্ত্রণা, বমি বমি ভাব, ঘাড় শক্ত হয়ে যাওয়া, জোরাল আলোয় কষ্ট হওয়ার মতো সাধারণ ভাইরাল ফিভারের লক্ষণ ছাড়া আলাদা কোনও লক্ষণ দিয়ে উপস্থিতি জানান দেয় না নিপা ভাইরাস। কিন্তু দ্রুত শরীরে ছড়িয়ে পড়তে থাকে। ধীরে ধীরে জ্ঞান হারানো থেকে শুরু হয়ে ৫-৬ দিনের মধ্যে কোমায় চলে যেতে পারে রোগী।

কীভাবে ধরা পড়ে এই রোগ?

একমাত্র অ্যালাইজা পরীক্ষার মাধ্যমেই নিপা ভাইরাস ধরা পড়ে। যে পরীক্ষা দেশের মধ্যে একমাত্র পুণের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ভাইরোলজিতেই করা হয়।

নি এম/