eibela24.com
শুক্রবার, ১৬, নভেম্বর, ২০১৮
 

 
ঋণের সদ্ব্যবহার নিশ্চিত করার নির্দেশ কেন্দ্রীয় ব্যাংকের
আপডেট: ০৬:৪৫ pm ০৬-০৬-২০১৮
 
 


ঋণের সদ্ব্যবহার নিশ্চিত করতে ২০১৭ সালে ‘ক্রেডিট রিস্ক ম্যানেজমেন্ট গাইডলাইন্স’ নামে একটি নীতিমালা প্রণয়ন করেছিল বাংলাদেশ ব্যাংক। তা সত্ত্বেও ব্যাংকারদের যোগসাজশে অথবা প্রতারণার মাধ্যমে ব্যাংক ঋণের অর্থ অন্য খাতে সরিয়ে নেয়ার অভিযোগ রয়েছে। এ পরিপ্রেক্ষিতে ঋণের সদ্ব্যবহার নিশ্চিত করার তাগিদ দিয়ে আবারো সার্কুলার জারি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

মঙ্গলবার ‘ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি’ বিভাগের মহাব্যবস্থাপক আবু ফরাহ মো. নাছের স্বাক্ষরিত এক সার্কুলারে এ তাগিদ দেয়া হয়েছে।

সার্কুলারে বলা হয়েছে, ঋণ মঞ্জুরি, বিতরণ ও তদারকির ক্ষেত্রে যেকোনো ধরনের গাফিলতি বা যোগসাজশ প্রমাণ হলে দোষীদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ২০১৭ সালের ১৩ মার্চ জারিকৃত বিআরপিডি সার্কুলার নং ২-এর প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে নতুন সার্কুলারে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক প্রণীত ‘ক্রেডিট রিস্ক ম্যানেজমেন্ট গাইডলাইন্স’-এ ঋণগ্রহীতা নির্বাচন থেকে শুরু করে ঋণ বিতরণ-পরবর্তী সময়ে করণীয় বিষয়ে বিস্তারিত নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এসব নির্দেশনা যথাযথভাবে অনুসরণ করা হলে গ্রাহককে যে উদ্দেশ্যে ঋণ মঞ্জুর করা হয়েছে, সেটি বাদে অন্য খাতে তা ব্যবহারের সম্ভাবনা থাকে না। ক্রেডিট রিস্ক ম্যানেজমেন্ট গাইডলাইন্সের আলোকে প্রণীত নিজ নিজ ব্যাংকের ঋণ নীতিমালা বাস্তবায়নে পরিচালনা পর্ষদ, ক্রেডিট কমিটি ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা তাদের দায়িত্ব সুষ্ঠুভাবে পরিপালন না করলে গৃহীত ঋণের সদ্ব্যবহার নিশ্চিত করা যায় না।

এ পরিপ্রেক্ষিতে যে উদ্দেশ্যে ঋণ প্রদান করা হয়েছে বা হবে, সে উদ্দেশ্যেই ঋণের সদ্ব্যবহার নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে নিয়মিত মনিটরিং করার জন্য ব্যাংকগুলোকে পুনরায় পরামর্শ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বিশেষত কিস্তিভিত্তিক প্রকল্প ঋণের ক্ষেত্রে আগের কিস্তির সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত হয়ে পরবর্তী কিস্তি ছাড়করণের জন্য পরামর্শ দেয়া হয়েছে। এছাড়া কোনো ঋণের অর্থ উদ্দিষ্ট খাতের পরিবর্তে অন্যত্র ব্যবহূত হলে ব্যাংককে তার কারণ উদ্ঘাটনসহ তাত্ক্ষণিক প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্যও নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

আইনের ব্যত্যয়ের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে নতুন সার্কুলারে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ ব্যাংকের অনসাইট বা অফসাইট সুপারভিশনে ঋণ মঞ্জুরি, বিতরণ ও তদারকির ক্ষেত্রে যেকোনো ধরনের গাফিলতি বা যোগসাজশ পরিলক্ষিত হলে সংশ্লিষ্ট দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ব্যাংক কোম্পানি আইন-১৯৯১-এর আওতায় শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


বিডি