eibela24.com
বুধবার, ২১, নভেম্বর, ২০১৮
 

 
গুঠাইল ও মোরাবাদে রমরমা অবৈধ বালু ব্যবসা
আপডেট: ০৯:৪৪ pm ২৬-০৬-২০১৮
 
 


জামালপুরের ইসলামপুরে দীর্ঘ দিন ধরে গুঠাইল ও পাথর্শী ইউনিয়নের মোরাদাবাদে চলছে অবৈধ বালু ব্যবসা।

জানা যায়,চিনাডুলী ইউনিয়নের বর্তমান ইউপি সদস্য মজনু মন্ডলের ভাই ফজলু, সাবেক ইউপি সদস্য শাহজাহান কবীর নিদেনু ও মোস্তফাসহ একটি বালু দস্যুচক্র যমুনার জেগে উঠা বিভিন্ন চর থেকে অবৈধভাবে খনিজ বালু সম্পদ শ্যালো ইঞ্জিন চালিত নৌকা দিয়ে উত্তোলন করে গুঠাইলে ৪টি পয়েন্টে জমা করে দীর্ঘদিন ধরে লাখ লাখ টাকার বালু বিক্রি করে আসছে। দীর্ঘদিন ধরে যমুনা থেকে সরকারি অনুমতি ছাড়াই খনিজ সম্পদ লুট পাট করে বিক্রি করলেও স্থানীয় প্রশাসন  এব্যাপারে নীরব ভূমি পালন করে আসছেন। 

এব্যাপারে অনুসন্ধানে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বালু ব্যবসায়ী চক্রটি ইউএনও, এসিল্যান্ডসহ সংশ্লিষ্টদের ম্যানেজ করেই দীর্ঘদিন ধরে এ অবৈধ বালু ব্যাবসা চালিয়ে যাচ্ছে।

গুঠাইল বালু দস্যু ফজলুর ভাই স্থানীয় ইউপি সদস্য মজনু মন্ডল দম্ভ করে জানান, ইউএনও, ভূমি অফিস, পুলিশকে ম্যানেজ করেই বালু ব্যবসা করা হচ্ছে। এব্যাপারে লেখে আপনারা যা পারেন করতে পারেন।

বালু ব্যাবসায়ী সাবেক ইউপি সদস্য শাহজাহান কবীর নিদেনুর সাথে কথা হলে তিনি জানান, সবাইকে ম্যানেজ করে বালু ব্যবসা করা হচ্ছে। 

পরে এব্যাপারে স্থানীয় চিনাডুলী ইউনিয়ন ভূমি অফিসে যোগাযোগ করলে সহকারী ভূমি কর্মকর্তা জুলহাস উদ্দিন জানান, যমুনা থেকে বালু তোলার লাইসেন্স ব্যাপারে তিনি কিছুই জানেন না। তবে যমুনা থেকে বালু তোলার কারো কোন অনুমতি নেই বলে জানান। 

বেলগাছা ইউনিয়ন সহকারী ভূমি কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) দিদারুল আলম জানান, যমুনার কোথা থেকে বালু এনে গুঠাইলে রাখা হচ্ছে জানি না। তবে বিষয়টি ইতোপূর্বেও উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবহিত করেছি।

অন্যদিকে সম্প্রতি পত্রিকায় সাংবাদিকরা লেখালেখির এক পর্যায়ে ইসলামপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মিজানুর রহমান পাথর্শী ইউনিয়নের মোরাদাবাদের দুইটি অবৈধ বালু স্পটে ভ্রাম্যমান আদালত করে বালু জব্দ করেন। জব্দকৃত বালু স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ইফতেখার আলম বাবুলের জিম্মায় রাখে। অভিযোগ উঠেছে প্রশাসনকে ম্যানেজ করে স্কুল সংলগ্ন সেই জব্দকৃত বালুর একটি স্পট কোন প্রকার নিমাল ছাড়াই বালু ব্যাবসায়ী চক্রের কাছে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে চেয়ারম্যান ইফতেখার আলম বাবুল জব্দকৃত বালু বিক্রির অনুমতি দিয়েছে এবং আবারও একই স্পটে বালু তোলার পায়তারা করছে।

এব্যাপারে ইসলামপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মিজানুর রহমান জানান, কে বলেছে প্রশাসনকে ম্যানেজ করেছে। আমি এব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থাসহও গুঠাইলে বালু জব্দ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবো।


ওএইচ/বিডি