eibela24.com
বুধবার, ২৬, সেপ্টেম্বর, ২০১৮
 

 
২ মাস অতিবাহিত হলেও
নবীগঞ্জে মূর্তি ভাংচুরকারীরা শনাক্ত না হওয়ায় এলাকাবাসীর ক্ষোভ!
আপডেট: ০৮:১৬ pm ০৮-০৭-২০১৮
 
 


নবীগঞ্জ উপজেলার বাউসা ইউনিয়নেরর সুজাপুর গ্রামের মনিকর্মিকা শ্মশানঘাট মন্দিরের কালিমূর্তি ভাংচুর ও দানবাক্স চুরির ঘটনার প্রায় ২ মাস অতিবাহিত হলেও নবীগঞ্জ থানা পুলিশ এখন পর্যন্ত ঘটনার সাথে জড়িতদের খুজে বের করতে না পারায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নবীগঞ্জ উপজেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ নেতৃবৃন্দ।  

নেতৃবৃন্দ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করার জন্য একটি কুচক্রীমহল পরিকল্পিতভাবে এই জঘন্যতম কাজ করেছে। 

নবীগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনার প্রায় ২ মাস অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত ঘটনার সাথে জড়িতদের খুজে বের করতে না পারায় নবীগঞ্জ উপজেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি নারায়ন রায়, সভাপতি মন্ডলীর সদস্য কালীপদ ভট্টাচার্য্য, বাদল কৃষ্ণ বনিক, সাধারন সম্পাদক উত্তম কুমার পাল হিমেলসহ সংগঠনের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, পুলিশ খুঁজে গ্রেপ্তার করতে পারে না সমাজে এমন কোন অপরাধী নেই। 

ঘটনার সাথে জড়িতদের অবিলম্বে খুঁজে বের করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়ার জন্য পুলিশ প্রশাসনের প্রতি আহবান জানিয়েছেন হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা। 

উল্লেখ্য, ১১ মে শুক্রবার দিবাগত গভীররাতে মনিকর্মিকা শ্মশানঘাট মন্দিরের কলাপসিবল গেইটের তালা ভেঙ্গে কালীমূর্তি ভাংচুর করে দুর্বৃত্তরা।

ইউপিএইচ/বিডি