eibela24.com
শুক্রবার, ১৬, নভেম্বর, ২০১৮
 

 
ডিমের দাম বেড়েছে দ্বিগুণ
আপডেট: ০৪:৪৭ pm ২০-০৭-২০১৮
 
 


ঈদের পর ডিমের দাম বেড়েছে দ্বিগুণ, চড়াদামে বিক্রি হওয়া কাঁচামরিচের দাম এখনো চড়াই রয়েছে। তবে সস্তায় বিক্রি হচ্ছে সবজি।

শুক্রবার রাজধানীর কারওয়ানবাজার, রামপুরা, মালিবাগ হাজীপাড়া, খিলগাঁও, সেগুনবাগিচা ও শান্তিনগরের বিভিন্ন বাজার ঘুরে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, রোজায় ডিমের ডজন বিক্রি হয় ৬৫-৭০ টাকায়। তবে ঈদের পর ডিমের দাম কয়েক দফা বেড়েছে। আর শেষ সপ্তাহে ডজনে ডিমের দাম বেড়েছে ৫-৭ টাকা। এতে এক ডজন ডিমের দাম বেড়ে এখন বিক্রি হচ্ছে ৯৫-১০০ টাকায়। খুচরা দোকানে ডিমের দাম আরও বেশি।

খুচরা পর্যায়ে মুদি দোকানে ডিমের দাম বেড়ে প্রতিপিস বিক্রি হচ্ছে ১০ টাকায়। এ বিষয়ে রামপুরার ব্যবসায়ী বলেন, এখন আমাদের একপিস ডিম কিনতেই খরচ পড়ছে ৮ টাকা। সুতরাং ১০ টাকার নিচে একপিস ডিম বিক্রি করা সম্ভব হচ্ছে না।

গত সপ্তাহের মতো শুক্রবারও ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, আড়তে মরিচের সরবরাহ কম, যে কারণে দাম চড়াই রয়েছে। গত সপ্তাহে ১৪০-১৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হওয়া কাঁচামরিচের দাম একই রয়েছে। আর এক পোয়ার (২৫০ গ্রাম) হিসাবে মরিচ বিক্রি হচ্ছে ৪০-৪৫ টাকায়।

এদিকে পেঁয়াজের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৪৫-৫০ টাকা কেজি। আর আমদানি করা ভারতীয় পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে প্রতিকেজি ৩০-৩৫ টাকায়।

বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, পটল, ঝিঙা, ধুন্দল, চিচিঙ্গা, বেগুন, কাকরুল, ধেড়স, মিষ্টি কুমড়া, পেপে, করলাসহ প্রায় সব সবজিই বাজারে ভরপুর। ফলে দামও তুলনামূলক সস্তা। প্রায় সব সবজি আগের সপ্তাহের দামেই বিক্রি হচ্ছে।

গত সপ্তাহে ৭০-৮০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া পাকা টমেটোর দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। টমেটোর মতো দাম অপরিবর্তিত থাকার তালিকায় রয়েছে, চিচিঙ্গা, পটল, ঝিঙা, ধুনদল, কাকরুল, করলা, বরবটি। এসব সবজি বিক্রি হচ্ছে ৩০-৩৫ টাকা কেজি দরে। একই দামে বিক্রি হচ্ছে বেগুন। পেপে আগের সপ্তাহের মতো ২০-২৫ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে।

তবে কারওয়ান বাজার এখন সব ধরনের সবজিতে বাজার ভরপুর। পটল, কাকরুল, বরবটি, ঝিঙা, ধুনদল, বেগুন যা চাইবেন মনমত পাবেন।

বিডি