eibela24.com
বুধবার, ২৬, সেপ্টেম্বর, ২০১৮
 

 
বিপর্যয়ের মুখে জামালপুরের কাঁসা শিল্প
আপডেট: ০২:৫৫ pm ২৩-০৭-২০১৮
 
 


একসময় জামালপুরের ইসলামপুরের ঐতিহ্য ছিলো কাঁসা শিল্প। এখানকার তৈরি কাঁসার কদর ছিল মোগল আর বৃটিশ রাজ পরিবারেও। নানা সঙ্কট আর সমস্যায় সেই কাঁসা শিল্প এখন বিপর্যয়ের মুখে। কাঁচামালের মূল্য বৃদ্ধি, কারিগর অভাব এবং পূঁজির অভাবে বংশ পরম্পরায় এ পেশা ছেড়ে দিতে বাধ্য হচ্ছেন অনেকে।

জামালপুরের ইসলামপুরের কাসারীপাড়ার কাঁসা শিল্পের বেশ নাম ডাক ছিলো একদা। সময়ের বিবর্তনের এই শিল্পের জৌলুস এখন অনেকটাই হারিয়ে গেছে। মেলামাইন, প্লাস্টিক, সিরামিক আর কাচের তৈজসপত্রের ভিড়ে কাঁসা প্রায় বিলীন। অবশ্য সৌন্দর্য প্রিয় মানুষ আর সনাতন ধর্মালম্বীদের কাছে কাঁসার জিনিস পত্রের কদর আগের মতই।

ইসলামপুরের এই কাঁসারী পল্লীতে কয়েক বছর আগেও যেখানে ছিল ২৫/৩০টি কারখানা, নানা সঙ্কটে এখন আছে মাত্র ৬/৭টি। 

কাঁসার কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহৃত তামা আর রাং-এর দুস্প্রাপ্যতা এই শিল্পকে সঙ্কটের মূখে দাঁড় করিয়েছে। তামা দেশে কমবেশি পাওয়া গেলেও রাং আমদানী করতে হয় মালয়েশিয়া থেকে। এছাড়া বেড়েছে কয়লার দামও। এসব কারণে টিকে থাকতে পারছে না কাঁসারী পরিবারগুলো।

কাঁসা শিল্পকে টিকিয়ে রাখতে সমবায় মন্ত্রনালয়ের মাধ্যমে সহায়তার চেষ্টা চলছে- জানান ইসলামপুরের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।

সহজ শর্তে ব্যাংক ঋণ, শুল্কমুক্ত রাং আমদানীর উদ্যোগ নেয়া হলে- ঐতিহ্যবাহী এই শিল্পটি টিকে থাকার পাশাপাশি পুনর্জাগরনের সম্ভাবনাও থাকবে, এমনটা মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

নি এম/