eibela24.com
মঙ্গলবার, ২৫, সেপ্টেম্বর, ২০১৮
 

 
নড়াইলের লোহাগড়ায় বন্দুকযুদ্ধে ১ ডাকাত নিহত
আপডেট: ০৮:০৩ pm ২৪-০৭-২০১৮
 
 


নড়াইলের লোহাগড়ায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক ডাকাত নিহত হয়েছেন। সোমবার (২৩ জুলাই) রাত ৩ টার দিকে লোহাগড়া পৌর শহরের কচুবাড়িয়া এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত ডাকাত জাকির সিকদার(৩৬) উপজেলার কোটাকোল ইউপির ঘাঘা মধ্যপাড়ার মৃত কালাম সিকদারের ছেলে।

বন্দুক যুদ্ধের সময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ানস্যুটারগান, দুই রাউন্ড গুলি, দুইটি ধারালো অস্ত্র ও একটি হাতুড়ি উদ্ধার করে। বন্দুক যুদ্ধের সময় লোহাগড়া থানার  এসআই মাহফুজুল হাসান, এএসআই প্রলয় চক্রবর্তী, কনস্টেবল মুরাদ ও টিটু আহত হয়েছেন। আহত পুলিশ সদস্যদের লোহাগড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। 

লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) প্রবীর কুমার বিশ্বাস, মঙ্গলবার দুপুরে সাংবাদিকদের জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ জানতে পারে, কয়েকজন ডাকাত পৌর শহরের কচুবাড়িয়া এলাকার একটি বাগানে ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে। এ সময় ঘটনাস্থলে একদল পুলিশ পৌঁছালে ডাকাত দলের সদস্যরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেরে পুলিশকে  লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও কয়েক রাউন্ড পাল্টা গুলি চালায়। উভয় পক্ষের মধ্যে দীর্ঘ সময় গুলি বিনিময়ের এক পর্যায়ে পুলিশ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এক ডাকাতকে উদ্ধার করে লোহাগড়া হাসপাতালে নিয়ে আসে। এ সময় ডাকাত দলের অন্য সদস্যরা পালিয়ে যায়। গুলিবিদ্ধ ডাকাত দলের সদস্যকে হাসপাতালে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) আরও জানান, বন্দুক যুদ্ধে নিহত ডাকাত জাকিরের নামে লোহাগড়া থানায় ২০০৬ সালে এবং ২০১৪ সালে দু’টি ডাকাতির মামলাসহ একাধিক মামলা রয়েছে। মঙ্গলবার দুপুর ১ টার দিকে কোটাকোল ইউপির মেম্বর জিন্নাহ রহমান ও নিহত ডাকাত জাকিরের ভাই জাফর সিকদার এবং আকবর সিকদার লোহাগড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এসে নিহতের পরিচয় শনাক্ত করেন। নিহতের লাশের ময়না তদন্তের জন্য নড়াইল সদর হাসপাতার মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে বলে ওসি জানান।


আরএম/বিডি