eibela24.com
সোমবার, ২৪, সেপ্টেম্বর, ২০১৮
 

 
৯ বছর পর বিদেশে সিরিজ জিতল বাংলাদেশ
আপডেট: ০৯:৩০ am ২৯-০৭-২০১৮
 
 


দ্বিধা, সংশয় আর ভয়কে উড়িয়ে বাংলাদেশ এবার রচনা করল বিজয় কাব্য।  ৯ বছর পর দেশের বাইরে আবারও সিরিজ জিতল টাইগাররা।

সেন্ট কিটসের ওয়ার্নার পার্কে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ১৮ রানে হারিয়েছে বাংলাদেশ। শেষ ম্যাচ জয়ের মধ্য দিয়ে ২-১-এ সিরিজ জিতল বাংলাদেশ।

ওয়ার্নার পার্কে শনিবার তামিম ইকবালের রেকর্ড গড়া সেঞ্চুরিতে বাংলাদেশ করেছিল ৩০১ রান। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের এটি প্রথম তিনশ রানের স্কোর। রান তাড়ায় পাওয়েলের খুনে ইনিংস ক্যারিবিয়ানদের আশা দেখিয়েছিল জয়ের। কিন্তু শেষ পর্যন্ত থমকে গেছে তারা ২৮৩ রানে।

৪১ বলে ৭৪ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেছেন পাওয়েল। কিন্তু শেষ দুই ওভারে রুবেল হোসেন ও মুস্তাফিজুর রহমান যন্ত্রণায় পুড়তে দেননি দলকে।

জয়ের ভিত রচনা হয়েছে যদিও তামিমের ব্যাটে। প্রথম ম্যাচের মতোই উপহার দিয়েছেন দারুণ এক সেঞ্চুরি। গড়েছেন বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে দেশের বাইরে দ্বিপাক্ষিক সিরিজে একাধিক সেঞ্চুরির কীর্তি।

এরপর ঝড় তুলেছেন মাহমুদউল্লাহ। ছয় নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমে দারুণ এক ইনিংস খেলেছেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের রান তাড়ার শুরুটা খারাপ ছিল না। আগের দুই ম্যাচে ধীরগতিতে শুরু করলেও গেইল এদিন ছিলেন আগ্রাসী। তবে এভিন লুইস ছিলেন ব্যর্থতার বৃত্তেই। বলে ব্যাট ছোঁয়াতেই ধুঁকছিলেন। গেইলের সৌজন্যে তবু ১০ ওভারে ৫৩ রান ওঠে উদ্বোধনী জুটিতে।

সিরিজে টানা তৃতীয়বার দলকে প্রথম উইকেট এনে দন মাশরাফি। টানা তৃতীয় ম্যাচে ফেরান লুইসকে (৩৩ বলে ১৩)।

দ্বিতীয় জুটিতেও ঠিক একই চিত্র। এক পাশে দারুণ সব শট খেলেছেন গেইল। স্টেডিয়ামের ছাদে বল ফেলেছেন একবার। একবার পাঠিয়েছেন মাঠের বাইরে। অন্যপাশে হোপ এগোচ্ছিলেন খুঁড়িয়ে। ৫২ রানের জুটিতে হোপের রান ৩২ বলে ১৪!

ক্রমেই ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে থাকা গেইলকে থামান রুবেল হোসেন। ৬ চার ও ৫ ছক্কায় ৬৬ বলে ৭২ করে ক্যাচ দেন লং অনে।

অর্ধশত রানের জুটি হয়েছে তৃতীয় উইকেটেও। হোপ ও শিমরন হেটমায়ারের জুটি ৬৭ রানের। আগের ম্যাচে অসাধারণ সেঞ্চুরি করা হেটমায়ারকে ৩০ রানে বোল্ড করে দেন মিরাজ।

হোপ আউট হতে পারতেন আরও আগেই। ৩৬ রানে মিরাজের বলে লং অফে তার ক্যাচ ছাড়েন রুবেল।

দ্বিতীয় স্পেলে ফিরে মাশরাফি ফেরান ৬৪ রান করা হোপকে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের আশার সমাপ্তিও তাতেই দেখছিলেন অনেকে। কিন্তু রোভম্যান পাওয়েল তখনও দেখছিলেন স্বপ্ন!

দুর্দান্ত সব শটে ম্যাচ জমিয়ে দেন পাওয়েল। প্রথম ৫ ওভারে ১০ রান দিয়েছিলেন যে মুস্তাফিজ, তার পরের ৩ ওভার থেকে আসে পাওয়েলের তাণ্ডবে ৩৮ রান!

শেষ ৩ ওভারে ৪০ রানের সমীকরণকে তখন অসম্ভব মনে হচ্ছিল না। পাওয়েল চেষ্টা করেছেন। কিন্তু মুস্তাফিজ গুছিয়ে নেন নিজেকে। ৪৯তম ওভারে দুর্দান্ত বোলিংয়ে কেবল ৬টি সিঙ্গেল দেন রুবেল। শেষ ওভারের প্রথম বলে মুস্তাফিজ ছক্কা হজম করলেও পরের ৫ বলে দেন ৩ রান।

নি এম/