eibela24.com
রবিবার, ১৮, নভেম্বর, ২০১৮
 

 
দীঘিনালায় কির্তিকা ত্রিপুরাকে ধর্ষণের পর হত্যা
আপডেট: ০৩:৪৪ pm ২৯-০৭-২০১৮
 
 


দীঘিনালায় ৯ মাইল এলাকায় চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী কির্তিকা ত্রিপুরাকে ধর্ষনের পর নির্মম ভাবে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে।

শনিবার দীঘিনালা উপজেলার মেরুং ইউনিয়নের ৯ মাইল এলাকা থেকে কির্তিকা ত্রিপুরার রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

নিহত কির্তিকা ত্রিপুরা (৯) দীঘিনালার ৯ মাইল ত্রিপুরা পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী। সে ওই এলাকার নন্দ কুমার ত্রিপুরার মেয়ে।

বর্তমানে ওই এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। এ ঘটনায় রবিবার সকাল থেকেই খাগড়াছড়ি-দীঘিনালা-বাঘাইছড়ি-লংগদু সড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শিশুটির মা জুম (পাহাড়ে চাষাবাদ) থেকে বাড়িতে ফিরে মেয়েকে না পেয়ে খুঁজতে থাকেন। অনেক খোঁজাখুঁজির পর রাত সোয়া ১১টার দিকে বাড়ির পাশের ছড়ায় তার রক্তাক্ত মরদেহ দেখে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে।

স্থানীয়রা বলছেন, শিশুটিকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। নরপশুরা তাকে শুধু ধর্ষণ করেই ক্ষান্ত হননি নির্মমভাবেও হত্যা করেছিল। একজন ৪র্থ শ্রেণির ছাত্রীর প্রতি কার এত শত্রুতা থাকতে পারে? তার দুটো হাত কেটে দেয়া হয়েছে। যৌনাঙ্গ কেটে ক্ষত বিক্ষত করা হয়েছে। পায়ুপথে গাছের গুড়ি ঢুকিয়ে দেয়া হয়েছে। 

দীঘিনালা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.আব্দুস সামাদ জানান, স্থানীয় ইউপি সদস্য শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে শিশুটির নিখোঁজের বিষয়ে জানান। পরে ভিকটিমের বাড়ির পাশের একটি ছড়া থেকে রাত সোয়া ১১টার দিকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।


নি এম/