eibela24.com
বুধবার, ১৪, নভেম্বর, ২০১৮
 

 
বন্দে পুরুষোত্তম, পরম প্রেমময় অনুকুল ঠাকুরের এই মন্ত্রেই লুকিয়ে রয়েছে ভাল থাকার চাবিকাঠি
আপডেট: ১০:০৫ am ০৩-০৮-২০১৮
 
 


বন্দে পুরুষোত্তম, এই নামটি শুনলেই যেন মনের সমস্ত আশা আকাঙ্খা ও ভাবনা চিন্তা ঠিক যেন কেমন একই চেতনায় মিশে যায় ৷ চেতনার চুণী-পান্না যেন নানান রঙে মিলেমিশে একাকার৷ ধর্মের প্রকৃত অর্থ ধারণ করা মানুষকে যা মনুষ্যত্বে ধারণ করে তাই হল ধর্ম৷

শাশ্বত মানব মানবীর এই দেশে একাধিক অবতার বা দেব-দেবীর পুজা আমরা করে থাকি৷ হাজার হাজার কোটি কোটি মানুষের মাঝেই তিনিই এক সত্যি বাকি সবই প্রকৃতি৷ সত্য, শিব, সুন্দরের জীবনের সনাতন ধর্মের এক অমলিন আকূতি ৷ এমনই প্রেমের ঠাকুর অনুকুল ঠাকুর৷ দেশ ভাগের যন্ত্রণা মানুষের মনে গভীর রেখাপাত করেছে৷ বাংলাদেশ থেকে পশ্চিমবঙ্গে এসেছেন মানুষেরা৷ পরম প্রেমময় ঠাকুর ১৮৮৮ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর জন্মগ্রহণ করেছিলেন হেমায়তপুরে অধুনা বাংলাদেশে৷ জীবনের দুঃখ দুর্দশা থেকে মুক্তি দিতেই নানান পথ বাতলেছেন ভক্তদের৷ বন্দে পুরুষোত্তম, এমনই এক মূলমন্ত্র যা মনের দুয়ারে তোলে জীবনের ঢেউ৷

অকারণে মানুষকে ভালবাসার রাস্তা দেখিয়েছেন। তিনি ব্রহ্মকে সঠিক অর্থেই উপলব্ধি করেছিলেন তিনি৷ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন সৎসঙ্গ ঘিরেই প্রতিদিন ঠাকুরের নামগান, প্রার্থনা, স্তবপাঠ সব মিলিয়ে মানুষ তৈরির এক কর্মক্ষেত্র৷ লোভ, লালসা, ঈর্ষা, মানুষকে কলুসিত করে মনুষ্যত্ব থেকে নিয়ে যায় অনেক দূরে৷ ভক্তদের উদ্দেশে তিনি বলেছেন যদি তুমি ভাল থাক অন্যেরা হয় নিপাত, তবে কী তোমার ভাল থাকা আদৌ ভাল থাকা? মনের বিশ্বাসে প্রেমময় ঠাকুরের পুজা করুন তাহলে আপনি পাবেন জাগতিক সুখ৷

নি এম/