eibela24.com
মঙ্গলবার, ২০, নভেম্বর, ২০১৮
 

 
কোহলির ব্যাটে ইতিহাস গড়ার স্বপ্ন ভারতের
আপডেট: ১০:৪০ am ০৪-০৮-২০১৮
 
 


উত্তেজনাপূর্ণ প্রথম দুই দিনের পর রোমাঞ্চে টইটম্বুর তৃতীয় দিন। উত্থান-পতন আর ব্যাট বলের তুমুল লড়াই শেষে ম্যাচ দাঁড়িয়ে রোমাঞ্চকর মোড়ে। যেখানে ইংল্যান্ডের জয়ের পথে দেয়াল হয়ে দাঁড়িয়ে বিরাট কোহলি। ভারতের স্বপ্নও বেঁচে কোহলির ব্যাটে। এশিয়ার প্রথম দল হিসেবে এজবাস্টনে টেস্ট জয়ের হাতছানি তাদের সামনে।

এজবাস্টন টেস্ট জিততে ভারতের প্রয়োজন আর ৮৪ রান। ইংল্যান্ডের চাই ৫ উইকেট। সমীকরণ আপাতত হেলে ভারতের দিকে। তবে চতুর্থ দিন সকালে কোহলিকে দ্রুত ফেরাতে পারলেই আবার ম্যাচ হেলে যাবে ইংলিশদের দিকে।

শুক্রবার ম্যাচের তৃতীয় দিনে ইংল্যান্ড দ্বিতীয় ইনিংসে অলআউট হয়েছে ১৮০ রানে। প্রথম ইনিংসে ইংলিশদের ১৩ রানের লিড মিলিয়ে ভারতের সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৯৪। ভারত দিন শেষ করেছে ৫ উইকেটে ১১০ রানে।

দুর্দান্ত বোলিংয়ে ৫ উইকেট নিয়ে ভারতকে জয়ের পথে তুলে দেন ইশান্ত শর্মা। রান তাড়ায় সতীর্থদের ব্যাটিং ব্যর্থতার মাঝে আবারও প্রায় একাই দলকে টেনে নিয়েছেন কোহলি। প্রথম ইনিংসে ১৪৯ রানের অসাধারণ ইনিংস খেলা ভারতীয় অধিনায়ক এবার অপরাজিত ৪৩ রানে।

ইংল্যান্ড দিন শুরু করেছিল ১ উইকেটে ৯ রান নিয়ে। আগের দিন বিকেলে অ্যালেস্টার কুককে ফেরানো রচিচন্দ্রন অশ্বিন ছোবল দেন এদিন সকালেও। দ্রুতই ফিরিয়ে দেন কিটন জেনিংস ও জো রুটকে।

৩৯ রানে ৩ উইকেট হারানো ইংল্যান্ড ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে ডাভিড মালান ও জনি বেয়ারস্টোর ব্যাটে। বাধা হয়ে দাঁড়ান ইশান্ত। দুর্দান্ত স্পেলে এলোমেলো করে দেন ইংলিশ মিডল অর্ডার।

মালানকে ২০ রানে ফিরিয়ে ইশান্ত ভাঙেন ৩১ রানের জুটি। খানিক পর এক ওভারেই ফেরান বেয়ারস্টা ও বেন স্টোকসকে। ওভারের মাঝে লাঞ্চ বিরতি। লাঞ্চের পর ওই ওভারের শেষ বলে ফিরিয়ে দেন জস বাটলারকেও!

৩ উইকেটে ৭০ থেকে ইংলিশদের রান হয়ে যায় ৭ উইকেটে ৮৭। শঙ্কা তখন পরাজয়ের। সেই ধ্বংসস্তুপেই মাথা তুলে দাঁড়ান ম্যাচে ইংল্যান্ডের সেরা পারফরমার স্যাম কারান।
প্রথম ইনিংসে ব্যাট হাতে গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলেছিলেন কারান। বল হাতে পরে নিয়েছেন ৪ উইকেট। দ্বিতীয় ইনিংসেও ব্যাট হাতে তুললেন ঝড়। লোয়ার অর্ডারদের নিয়ে শেষ তিন জুটিতে দলকে এনে দেন মহামূল্য ৯৩ রান।

৯ চার ও ২ ছক্কায় কারান করেন ৬৫ বলে ৬৩। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে যখন আউট হলেন এই ২০ বছর বয়সী, ইংল্যান্ড পেয়ে গেছে তখন লড়ার মতো রান।

অনুমিতভাবেই লড়াই জমল তুমুল। প্রথম ইনিংসে বিবর্ণ স্টুয়ার্ট ব্রড এবার ফেরালেন ভারতের দুই ওপেনারকে। লোকেশ রাহুল ব্যর্থ ম্যাচে দ্বিতীয়বার। আবারও বাজে শটে ফিরলেন অজিঙ্কা রাহানে। ব্যাটিং অর্ডারে প্রমোশন পাওয়া অশ্বিন পারলেন না টিকতে।

এই বিরুদ্ধ স্রোতেও ঠিকই এগিয়ে গেলেন কোহলি। যথারীতি খেলেছেন দারুণ সব শট। শেষ বিকেলের চ্যালেঞ্জটুকুও সামলে দিন শেষ করেছেন অপরাজিত থেকে।কোহলি আছেন বলেই স্বপ্ন দেখছে ভারত। এর আগে এই মাঠে ১৬ টেস্ট খেলেও জিততে পারেনি এশিয়ার কোনো দল। কোহলিদের সুযোগ নতুন ইতিহাস লেখার।

নি এম/