eibela24.com
বুধবার, ১৯, সেপ্টেম্বর, ২০১৮
 

 
ফেসবুকে পোষ্ট নিয়ে আবারও শিক্ষক আশিষ বিজয় দেব কারাগারে
আপডেট: ০২:৫৫ pm ০৮-০৮-২০১৮
 
 


নবীকে নিয়ে ফেসবুকে পোষ্ট নিয়ে দেওয়ার অভিযোগে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার মুন্সিবাজার কালিপ্রসাদ উচ্চ বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আশিষ বিজয় দেবকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠিয়েছে।

শনিবার (৪ আগস্ট) রাত ৩টায় দুর্বৃত্তরা শিক্ষক আশিষ বিজয় দেবের বাড়িতে হামলা ও অগ্নিসংযোগের চেষ্টা করে। এ ঘটনায় এলাকায় আতংক বিরাজ করছে।

পুলিশ সুপার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ সহকারী পুলিশ সুপার রবিবার ওই শিক্ষকের বাড়ি পরিদর্শন করেন।

জানা যায়, কালিপ্রসাদ উচ্চ বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আশিষ বিজয় দেব বৃহস্পতিবার (২ আগস্ট) রাতে নবী হযরত মোহাম্মদ (সা.) কে নিয়ে কটুক্তি করে একটি স্ট্যাটাস ফেসবুকে দিলে স্থানীয়ভাবে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। ফলে শুক্রবার রাতে কমলগঞ্জ থানার পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে। 

তার আগে এই শিক্ষক বৃহস্পতিবার রাতেই তার ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়েছে বলে কমলগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছিলেন।

কমলগঞ্জ থানা সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার সকাল থেকে তদন্তে নামে কমলগঞ্জ থানা পুলিশ। পরে রহিমপুর ইউনিয়নের জগন্নাথপুর গ্রামের সায়েক আলী শুক্রবার রাতে বাদী হয়ে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানার অভিযোগে কমলগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ থাকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে শনিবার মৌলভীবাজার আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করে।

এদিকে অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আশিষ বিজয় দেব কর্তৃক মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সা.) কে নিয়ে কটুক্তির প্রতিবাদে ও তার ফাঁসির দাবিতে শনিবার বিকেলে স্থানীয় চৈত্রঘাট বাজারে মাইকিং করে প্রতিবাদ সমাবেশ এর আয়োজন করেছিল বিক্ষুব্ধ তৌহিদী জনতা। খবর পেয়ে রহিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান ইফতেখার আহমেদ বদরুল, বিপুল সংখ্যক পুলিশ, গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যদের তৎপরতার কারণে প্রতিবাদ সভা হয়নি। পুলিশ বিক্ষুব্ধদের সরিয়ে দেয় এবং তদন্তক্রমে দোষী প্রমাণিত হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিলে বিক্ষুব্ধ লোকজন সরে যায়। এ ঘটনায় এলাকায় আতংক বিরাজ করছে।

এদিকে শনিবার দিবাগত রাত ৩টায় দুর্বৃত্তরা গ্রেপ্তার হওয়া শিক্ষক আশিষ বিজয় দেবের ছয়কুট গ্রামের বাড়িতে হামলা চালানোসহ একটি পরিত্যক্ত ঘরে অগ্নি সংযোগ করে। এ সময় ঐ এলাকায় টহলরত পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। টহল পুলিশ সদস্যরা আগুন নিভিয়ে ফেলেন।

ঘটনার খবর পেয়ে রবিবার সকালে মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাহজালাল, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আনোয়ারুল হক, কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হক, সহকারী পুলিশ সুপার (শ্রীমঙ্গল সার্কেল) আশফাকুজ্জামান, কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোকতাদির হোসেন পিপিএম ও রহিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান ইফতেখার আহমেদ বদরুল সরেজমিনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

কমলগঞ্জ উপজেলার প্রণয় দত্ত জানান, রবিবার বিকেলে উপজেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ ও উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের একটি টিম ছয়কুট গ্রামে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তারা এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করে বলেন, শিক্ষক অপরাধ করে থাকলে অবশ্যই আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কিন্তু বাড়িতে হামলা ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা খুবই দু:খজনক।

নি এম/