eibela24.com
রবিবার, ২৪, ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
 

 
শাহজাদপুরে অপহরণের ১০ দিন পর শিশুর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার
আপডেট: ০৯:২২ pm ১২-০৮-২০১৮
 
 


সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে অপহরণের ১০ দিন পর দুই বছরের শিশুপুত্র আব্দুস সালামের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

শনিবার রাত ১০ টার দিকে শাহজাদপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফাহমিদা হক শেলীর নেতৃত্বে সিরাজগঞ্জের ডিবি পুলিশ ও শাহজাদপুর থানা পুলিশ যৌথ ভাবে রায়পুর গ্রামে অভিযান চালিয়ে পাশের বাড়ির টয়লেটের সোপট্যাংকির ভিতর থেকে ওই শিশুর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে।

থানা পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার হাবিবুল্লাহ নগর ইউনিয়নের রায়পুর গ্রামের আকছেদ আলীর ২ বছরের শিশুপুত্র আব্দুস সালাম গত ২ আগষ্ট নিজ বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়। নিখোঁজের পরদিন তার ঘরের দরজার সামনে একাধিক চিরকুট পাওয়া যায়। এ সব চিরকুটে অপহরণকারীরা শিশুটির মুক্তিপণ হিসেবে ১০ লাখ টাকা দাবি করে। পরবর্তীতে আরেকটি চিরকুটে ৩ লাখ টাকা মুক্তিপণের বিনিময়ে শিশুটিকে ছেড়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয় অপহরণকারীরা। 

এক পর্যায়ে গত ৬ আগষ্ট শিশুর পিতা থানায় একটি জিডি করলে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ২ জনকে আটক করে। আটক দুইজনকে জিজ্ঞাসাবাদের সুত্র ধরে পুলিশ একই গ্রামের আমির চান নামে আরও এক ব্যক্তিকে আটক করে। পরে আমির চানের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি মোতাবেক জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশে শাহজাদপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে ডিবি ও থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে শিশুটির অর্ধগলিত লাশ টয়লেটের সোপট্যাংকির ভিতর থেকে উদ্ধার করে। 

এ ব্যাপারে শাহজাদপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফাহমিদা হক শেলী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, মুক্তিপণের আশায় আমির চান শিশুটিকে অপহরণ করে তার নিজ ঘরে আটকে রাখে। মুক্তিপণের টাকা না পেয়ে পরদিন শিশুটিকে হত্যা করে টয়লেটের সোপট্যাংকির ভিতর ফেলে দেয়।

এ ব্যাপারে নিহত শিশুর মা আম্বিয়া খাতুন বাদী হয়ে শাহজাদপুর থানায় একটি অপহরণ কন্ডে হত্যা মামলা দায়ের করেন। 

থানার অফিসার ইনচার্জ খাজা গোলাম কিববিরা জানান, ঘাতক আমির চানকে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ডের জন্য শাহজাদপুর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পাঠানো হয়েছে। লাশ ময়না তদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

নি এম/চন্দন