eibela24.com
বুধবার, ২৬, সেপ্টেম্বর, ২০১৮
 

 
বাঘায় সংখ্যালঘু গৃহবধূকে ধর্ষণ চেষ্টার মামলা চার দিনেও রেকর্ড হয়নি
আপডেট: ০৫:২৬ pm ১৩-০৮-২০১৮
 
 


রাজশাহীর বাঘায় সম্রাট নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে সংখ্যালঘু পরিবারের এক গৃহবধূকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। চার দিন আগে ওই পরিবারের গৃহবধূ থানায় সম্রাটের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন। কিন্তু রহস্যজনক কারনে সেই মালাটি অদ্যাবধি রেকর্ড করেনি পুলিশ। এর ফলে পুলিশের বিরুদ্ধে জনমনে মারাত্মক ক্ষোভের সৃষ্টি হচ্ছে।

অভিযোগে জানা গেছে, চারদিন পুর্বে গৃহবধুর স্বামী বাড়িতে ছিলেন না। রাত আনুমানিক সাড়ে ১১টায় প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে বাইরে বের হোন গৃহবধূ। এ সময় ঘরের মধ্যে প্রবেশ করে পাশের বাড়ির যুবক সম্রাট। বিষয়টি গৃহবধূর দৃষ্টিতে না আসায় দরজা লাগিয়ে শুয়ে পড়েন। এ সময় ঘরের ভেতরে থাকা যুবক সম্রাট গামছা দিয়ে ওই গৃহবধূর মুখ বেঁধে, চিৎকার না করার জন্য ধারালো ছোরা বের করে প্রাণনাশের ভীতি প্রদর্শন করে ওই গৃহবধুকে ধর্ষনের চেষ্টা চালায়। এ সময় আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে গৃহবধূর শরীর ছিলে যায়।

প্রায় আধা ঘন্টা ধ্বস্তাধ্বস্তির এক পর্যায়ে বাড়িতে প্রবেশ করে দরজা খুলতে বলে গৃহবধূর স্বামী বাবু। এ সময় দরজা খুলে কৌশলে পালিয়ে যায় সম্রাট। সে একই গ্রামের আজিজের ছেলে বলে জানা গেছে।

এদিকে অভিযোগ দায়েরের পর থেকে সম্রাটসহ তার পরিবারের লোকজন প্রতিপক্ষের বাড়িতে মাদক দিয়ে ফাঁসানোর ভয়ভীতি দেখাচ্ছে বলে জানিয়েছেন ওই সংখ্যালঘু পরিবার। অন্যদিকে পুলিশের রহস্যজনক ভুমিকায় অদ্যাবধি মামলাটি রেকর্ড না করায় বাদী পক্ষ হতাশায় ভুগছেন।

বাঘা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মুঞ্জুরুল ইসলাম জানান, অভিযোগ তদন্ত করেছেন। স্থানীয়ভাবে মিমাংসার দায়িত্ব নেওয়ায় মামলা রেকর্ড করা হয়নি। ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ কিভাবে মিমাংসা করা যাবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বাদী রাজি থাকলে সম্ভব।

তবে বাদীর দাবি অদ্যাবধি মামলা রেকর্ড না করায় তিনি বিচার নিয়ে হতাশাগ্রস্ত। কি করবেন ভেবে পাচ্ছেন না। তিনি এ বিষয়ে মামলাটি রেকর্ড করার মাধ্যমে ন্যায় বিচার যেন পান সেজন্য সরকারের উর্ধতন কতৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করেছেন।

নি এম/