eibela24.com
মঙ্গলবার, ১১, ডিসেম্বর, ২০১৮
 

 
পাকিস্তানকে অর্থ সাহায্য বন্ধ করল যুক্তরাষ্ট্র
আপডেট: ০৪:৩৪ pm ০২-০৯-২০১৮
 
 


সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান পরিচালনায় ব্যর্থতার অভিযোগ এনে পাকিস্তানকে আর্থিক সহায়তা বন্ধ করল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। ৩০০ মিলিয়ন ডলারের এই অর্থ দেশের জরুরি খাতে ব্যয় করা হবে বলে জানিয়েছে পেন্টাগন।

শনিবার পেন্টাগনের মুখপাত্র কন ফকনার জানান, মার্কিন ‌যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ এশিয়া নীতির পাশে না থাকার জন্য পাকিস্তানের জন্য রাখা ৩০০ মিলিয়ন ডলার সাহা‌য্য অন্য খাতে খরচ করা হবে। এব্যাপারে দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় ব্যবস্থা নিয়েছে বলেও জানান তিনি।

পাকিস্তান জঙ্গিদের স্বর্গরাজ্য৷ এই দেশই জঙ্গিদের একেবারে নিরাপদ ঘাঁটি৷ এই অভিযোগে আন্তর্জাতিক মহলে ক্রমশ কোণঠাসা হয়েছে পাকিস্তান৷ এর আগেও একাধিকবার জঙ্গি দমনে পাকিস্তানকে যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়ার আর্জি জানিয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন৷ কিন্তু ট্রাম্প প্রশাসনের সেই সমস্ত আর্জি তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিয়ে সন্ত্রাসবাদ জারি রেখেছে পাকিস্তান৷ তার জেরেই এবার ইমরান খানকে চাপে ফেলতে পাকিস্তানকে আর্থিক সাহায্য বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মার্কিন সেনা৷ যদিও এটা এখনও অবধি ট্রাম্প প্রশাসনের সবুজ সংকেতের অপেক্ষায় রয়েছে৷

পাকিস্তানের অর্থনীতির একটি বড় অংশ নির্ভর করে আমেরিকার অর্থ সাহায্যের উপরে৷ এছাড়া ভারত-পাক সম্পর্কের উন্নয়ন এবং কাশ্মীর সমস্যা সমাধানের জন্য মার্কিন সহযোগিতার দাবি করেছিলেন নওয়াজ শরিফ৷ সেই থেকেই আমেরিকা আর্থিক সাহায্য দেওয়ার বিষয়ে পাকিস্তানের পাশেই ছিল৷ তার বদলে পাকিস্তান জঙ্গি সংগঠনগুলি দমন করার নির্দেশ দিয়েছিল আমেরিকা৷ কিন্তু সন্ত্রাসবাদ দমনে যথাযথ পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হয়েছে পাকিস্তান৷ এমনকী, দক্ষিণ এশিয়া নীতির পাশে না থাকার কারণে পাকিস্তানকে আর্থিক সাহায্য বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আমেরিকা৷

প্রসঙ্গত, সন্ত্রাসবাদ দমনে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছিল বারাক ওবামা ৷ তারপর থেকে সেই ধারাই বজার রয়েছে দুই দেশের মধ্যে ৷ ট্রাম্প প্রধানমন্ত্রীর আসনে বসার পর পাকিস্তানের উপর আরও চাপ বাড়িয়েছে ৷ চলতি বছরের শুরুতেই পাকিস্তানকে একটি চিঠি লেখেন ডোনাল্ড ট্রাম্প৷ তিনি চিঠিতে বলেছিলেন, ‘গত ১৫ বছর ধরে পাকিস্তানকে টাকা দিয়ে যাচ্ছে আমেরিকা৷ কিন্তু পাকিস্তান একের পর এক মিথ্যে প্রতিশ্রুতি দিয়ে আমাদের দেশের নেতাদের বোকা বানাচ্ছে৷’

নি এম/