eibela24.com
শনিবার, ১৭, নভেম্বর, ২০১৮
 

 
নিথর দেহ হয়ে বাড়িতে ফিরলেন ডা. কর্ণ বিকাশ চাকমা
আপডেট: ১০:৩৩ am ০৩-০৯-২০১৮
 
 


ঢাকায় অবস্থানরত মেয়ের বাড়িতে বেড়াতে গিয়ে নিথর দেহ হয়ে বাড়িতে ফিরলেন খাগড়াছড়ির ডা. কর্ণ বিকাশ চাকমা (৬০)। 

গত শনিবার রাত ১১ টায় ঢাকা থেকে খাগড়াছড়িগামী এস আলম পরিবহনের বাসটি ভোর পৌনে চারটায় মিরসরায়ের বারিয়ারহাট রেল ক্রসিংয়ে বিপরীত দিক থেকে আসা বিজয় ট্রেনের ধাক্কায় দুমড়েমুচড়ে যায়। এতে নিহত হন ডা. কর্ণ বিকাশসহ খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে কর্মচারী সুর্নিমল চাকমা। 

কর্ণ বিকাশের সাথে থাকা তার স্ত্রী দীপ্তি চাকমা ও মেয়ে খুশি চাকমা আহত হন। তার স্ত্রীর অবস্থা গুরুতর। তাদের চট্টগ্রাম শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কর্ণ বিকাশ চাকমাকে আহত অবস্থায় চট্টগ্রাম শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে তিনি মারা যান।

রবিবার বিকালের দিকে ডা. কর্ণ বিকাশ চাকমার মরদেহ খাগড়াছড়ির বাড়িতে আনা হলেও স্বামীর মৃত্যু সংবাদ জানেন না হাসপাতালে চিকিৎসাধীন স্ত্রী দীপ্তি চাকমা। এমনটাই জানিয়েছেন নিহতের শ্যালক লক্ষী কুমার চাকমা।

তিনি জানান, একই ঘটনায় কিছুটা আহত তার ছোট মেয়ে আর্কিটেক্ট ইঞ্জিনিয়ার প্রমি চাকমা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়িতে বিশ্রামে আছেন।

এদিকে এ ঘটনার খবর পাওয়ার পরপর খাগড়াছড়িতে তাঁর পানখাইয়া পাড়ার স্লুইস গেট এলাকার বাড়িতে শোকের ছায়া নেমে আসে। মরহেদ চট্টগ্রাম থেকে রবিবার নিয়ে আসলে বাড়িতে শোকার্ত মানুষের ভিড় জমে যায়।

তিন মেয়ের বাবা ডা. কর্ণ বিকাশ চাকমা তিন বছর আগে উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার হিসেবে অবসরে যান। চিকিৎসক হিসেবে নিজ শহরে অত্যন্ত জনপ্রিয় কর্ণ বিকাশ চাকমার স্ত্রী দীপ্তি চাকমা খাগড়াছড়ি জেলা সদর হাসপাতালে স্বাস্থ্য সহকারী হিসেবে কর্মরত আছেন।

বড় মেয়ে স্বামীসহ অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী আর মেজ মেয়ে শিক্ষাজীবন শেষ করে একটি এনজিওতে কর্মরত।

এদিকে দুর্ঘটনার পরপরই তার মৃত্যু খবর ছড়িয়ে পড়লে খাগড়াছড়ি জেলা শহরের পানখাইয়া পাড়ার স্লুইচ গেট এলাকার বাড়িতে শোকের ছায়া নেমে আসে। 

হাসিখুশি পরিবারে যেন হঠাৎ করেই ঝড় উঠেছে। তার এ মৃত্যু মেনে নিতে পারছে না জেলা সদরের বাসিন্দা থেকে শুরু করে স্বজনরা।

বড় মেয়ে দেশে ফিরে আসার পর আগামী বৃহস্পতিবার ডা. কর্ণ বিকাশ চাকমার শেষকৃত্যানুষ্ঠান হবে বলে জানিয়েছেন নিহতের শ্যালক লক্ষী কুমার চাকমা। তারা ইতোমধ্যে দেশে ফেরার প্রস্তুতি শেষ করেছেন বলেও জানান তিনি।

নি এম/