eibela24.com
বৃহস্পতিবার, ২০, সেপ্টেম্বর, ২০১৮
 

 
৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহের উদ্বোধন করলেন হাসিনা-মোদি
আপডেট: ১০:০৯ am ১১-০৯-২০১৮
 
 


ভারত থেকে আরও ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহের উদ্বোধন করলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। 

পশ্চিমবঙ্গের বহরমপুর গ্রিড থেকে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারার আন্তঃবিদ্যুৎ সংযোগ গ্রিডের মাধ্যমে এ বিদ্যুৎ বাংলাদেশে আসবে।

সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢাকার গণভবন থেকে এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দিল্লী থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ বিদ্যুৎ সরবরাহ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

এ সময় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেবও কলকাতা ও আগরতলা থেকে এ ভিডিও কনফারেন্সে অংশ নেন।

নরেন্দ্র মোদি ভারত থেকে বিদ্যুৎ আমদানি মেগাওয়াট থেকে গিগাওয়াটে উন্নীত হওয়ার এই মুহুর্তকে দুই দেশের সম্পর্কের সোনালী প্রতীক বলে অভিহিত করেছেন। 

মোদি বলেছেন, ২০১৫ সালে বাংলাদেশ সফরের সময় তিনি আরও ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ বাংলাদেশে রফতানির প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। আগে বাংলাদেশে ৬৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ রফতানি করতো ভারত এখন এই পরিমাণ এক দশমিক ছয় গিগাওয়াটে উন্নীত হলো।

অন্যদিকে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পশ্চিমবঙ্গ থেকে আরও এক হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ রফতানিতে মোদির সহায়তা চান। শেখ হাসিনা বলেন, ভারত থেকে আমরা আরও তিন হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি করতে যাচ্ছি। বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ২০ হাজার মেগাওয়াটে উন্নীত হয়েছে। কিন্তু দেশের উচ্চ প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে আরও বিদ্যুৎ প্রয়োজন। এজন্য প্রতিবেশী দেশ থেকে ২০৪১ সাল পর্যন্ত ৯ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড জানিয়েছে, উদ্বোধনের আনুষ্ঠানিকতা সোমবার বিকালে হলেও রোববার মধ্যরাত থেকেই পরীক্ষামূলক সরবরাহ শুরু হয়েছে।

এ অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভেড়ামারায় নবনির্মিত ৫০০ মেগাওয়াট ক্ষমতার ‘হাই ভোল্টেজ ডিসি ব্যাক টু ব্যাক স্টেশনের দ্বিতীয় পর্যায়েরও উদ্বোধন করেন দুই প্রধানমন্ত্রী।

এছাড়া আখাউড়া-আগরতলা ডুয়েল গেজ রেললাইন প্রকল্পের বাংলাদেশ অংশ এবং মৌলবীবাজারের কুলাউড়া-শাহবাজপুর রেলপথ পুনর্বাসন প্রকল্পের নির্মাণ কাজেরও উদ্বোধন হয় এ অনুষ্ঠানে।

জাতীয় গ্রিডে নতুন আসা ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুতের মধ্যে ৩০০ মেগাওয়াট আসবে ভারতের সরকারি কোম্পানি ‘ন্যাশনাল থার্মাল পাওয়ার প্ল্যান্ট’ থেকে। বাকি ২০০ মেগাওয়াট আসবে বেসরকারি কোম্পানি ‘পাওয়ার ট্রেডিং করপোরেশন’ থেকে।

নি এম/