eibela24.com
মঙ্গলবার, ২৭, অক্টোবর, ২০২০
 

 
উপকূলীয় দেশগুলোর সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘনে চীনের সমালোচনায় পম্পেও 
আপডেট: ১১:০৩ pm ০৫-০৮-২০২০
 
 


সম্প্রতি চীনের বিরুদ্ধে সমুদ্র সীমা লঙ্ঘন করে মাছ শিকারের অভিযোগ তুলেছে দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ইকুয়েডর। এ ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়ে চীনের তীব্র সমালোচনা করেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও।

নানা সময়ে বেইজিংকর্তৃক উপকূলীয় বিভিন্ন দেশের সার্বভৌমত্ব ও আইনি অধিকার লঙ্ঘনের ঘটনায় দেশটির প্রতি কঠোর হতে আন্তর্জাতিক মহলকে আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। 
 
ভারতীয় সংবাদ সংস্থা এএনআই’র এক প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা যায়।  

ইকুয়েডরের সমুদ্র সীমা লঙ্ঘনের ঘটনায় চীনের সমালোচনা করে টুইটারে এক পোস্টে পম্পেও লেখেন, এখনই সময় বেআইনিভাবে মাছ শিকার ও সমুদ্রের পরিবেশগত ক্ষতিসাধন থেকে চীনকে নিরস্ত করার। আমরা ইকুয়েডরের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করি ও বেইজিংকে আহ্বান জানাই আগে থেকেই অবগত না করে, অবৈধভাবে মাছ শিকার বন্ধ করতে।   

এদিকে এ ঘটনায় মার্কিন পররাষ্ট্র বিভাগের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বাণিজ্যিকভাবে মাছ শিকারের জন্য পৃথিবীর সর্ববৃহৎ বহর রয়েছে চীনের, যা লাইসেন্স ও অনুমতি ছাড়াই নিয়িমিতভাবে বিশ্বের উপকূলীয় বিভিন্ন দেশের সার্বভৌমত্ব ও আইনি অধিকার লঙ্ঘন করে।

‘ইকুয়েডর সরকার যথাসময়ে এ ব্যাপারে সরব হয়েছে। চীনের পতাকাবাহী শত শত জলযান দেশটির গুরুত্বপূর্ণ গ্যালাপাগোস সমুদ্র অঞ্চলে অনৈতিকভাবে মাছ শিকার করে। অথচ এ অঞ্চলটি হুমকির মুখে থাকা হাঙর ও অন্যান্য মাছ এবং সামুদ্রিক প্রাণীদের জন্য সংরক্ষিত। ’ 

‘চীনা পতাকাবাহী জলযানের অবৈধ মাছ শিকার বন্ধে আমরা জোরালোভাবে ইকুয়েডরকে সমর্থন জানাই। চীনা পতাকাবাহী জলযানের জন্য হুমকিতে থাকা অন্যান্য দেশগুলোর প্রতিও আমরা সংহতি জানাই। চীনের এ ধরনের কার্যক্রম মাছ শিকারের আন্তর্জাতিক আইনের পরিপন্থি’ 

চীনের এ ধরনের কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে দাঁড়ানোর জন্য আন্তর্জাতিক মহলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন মাইক পম্পেও। 

নি এম/