eibela24.com
রবিবার, ১৭, জানুয়ারি, ২০২১
 

 
কেন লাদাখের প্যানগংয়ের জলের নিচে খোঁজ শুরু চীনের?
আপডেট: ০৪:২৭ pm ১৪-১০-২০২০
 
 


লাদাখে শান্ত প্যানগংয়ের জলের ওপরের স্তরে আগ্রাসনের শুরুর দিন থেকে বিশেষ টহলদারিতে ব্যস্ত চীনের সেনা। প্যানগং জুড়ে লালফৌজ দুটি রণতরী টাইপ ৩০৫ ও ৯২৮ডি নিয়ে নজরদারি চালাচ্ছে। তবে জলের গভীরতা মাপা সাম্প্রতিককালে শুরু করেছে লালফৌজ। একনজরে দেখে নেওয়া যাক, জলের তলার কোন রণনীতিতে শান দিয়ে যাচ্ছে বেজিং।

স্যাটেলাইটের সাম্প্রতিক ছবিতে ধরা পড়েছে, প্যানগংয়ের গভীরতা মাপতে তিনের বিশেষ এয়ারক্রাফ্টে 'ম্যাগনেটিক অ্যানমেলি ডিটেক্টর বুম' রাখা হচ্ছে। যার দ্বারা এই বিশেষ বিমানগুলি প্যানগংয়ের গভীরতা মাপতে পারছে। চীনের এই এয়ারক্রাফ্ট ওয়াই ৮ জিএক্স সিক্স, শানশি ওয়াই -৮, গাওশিন -৬ এর মতো বিমান চীনের বিশেষ অ্যান্টি সাবমেরিন যুদ্ধে কার্যকরী ভূমিকা নিয়েছে।

প্রসঙ্গত, প্রাকৃতিক সম্পদের দিকে লোভ চিনের বহুকালের। আর সেই কারণেই দক্ষিণ চীন সাগর এলাকায় চীন ক্রমাগত সম্পদের লোভে আগ্রাসন বাড়িয়েছে। এবার বিশেষ বিমান নিয়ে প্যানগংয়ের জলের নিচে দুটি কারণে খোঁজ চালাচ্ছে চীন। প্রথমত, প্যানগংয়ের জলের নিচে ভারতীয় সেনা কোনও সমরশক্তি বাড়াচ্ছে কিনা সেদিকে চোখ রাখছে বেজিং। অন্যদিকে বেজিংয়েএর এই বিশেষ বিমানে জলের তলায় প্রতিপক্ষের সাবমেরিন খোঁজার পাশাপাশি চীন খোঁজ চালাচ্ছে প্রাকৃতিক সম্পদের। জলের তলার মাটি সম্পর্কে ওই বিমানের প্রযুক্তি বহু তথ্য দিতে শুরু করেছে চীনকে ।

ভারতের ওপর নজরদারিতে চীন কী কী করছে?

ইন্দো তিব্বত সীমান্তে গত কয়েকদিন ধরে চীন আকাশপথে টহলদারি বাড়িয়ে দিয়েছে। চীনের ওপ্রান্তে লাসা, শিগেটস, হোতান, অকেসু, উদুন, ইশাকতাল থেকে বারবার আকাশপথে বিমান উড়ে ভারতের একাধিক জায়গায় নজরদারি চালিয়ে যাচ্ছে।

লাদাখের আকাশপথে চীন সাম্প্রতিক কালে দুটি ইউএভি উড়িয়েছে। তারা বারবার জানতে চাইছে, প্যানগংয়ের জলের তলায় ভারতীয় সেনা কোনও দুরূহ যুদ্ধনীতির প্রস্তুতি নিচ্ছে কিনা। কারণ, শীতকালীন যুদ্ধে চীন সেভাবে পটু নয়। তবে ভারতের এই অভিজ্ঞতা খুবই পোক্ত। ফলে নজরদারি করে, জলের নিচের যুদ্ধনীতিতে এবার শান দিচ্ছে চীন। মূলত, ভূভাগের যুদ্ধে লাদাখে পর পর ১৫ জুন থেকে ৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ব্যকফুটে চলে গিয়েছে চীন। এরপর জলের নিচের যুদ্ধনীতির খোঁজে বেজিং।

নি এম/