eibela24.com
বুধবার, ১৪, নভেম্বর, ২০১৮
 

 
আ’লীগ নেতার মদদে দুই সংখ্যালঘু পরিবারের কোটি টাকার সম্পত্তি দখল
আপডেট: ০৫:১৭ pm ১২-০৬-২০১৬
 
 


নাজিরপুর (পিরোজপুর) প্রতিনিধি :: পিরোজপুরের নাজিরপুরে দুই সংখ্যালঘু পরিবারের কোটি টাকা মূল্যের প্রায় ৫ একর সম্পত্তি স্থানীয় জামাত-বিএনপি সমর্থিত একটি ভূমিদস্যু চক্র দখল করে নিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনার প্রতিবাদ করলে ওই চক্রটি প্রকাশ্যে সংখ্যালঘু পরিবারের বসতঘরে আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেয়া সহ ভারতে পাঠিয়ে দেওয়া হুমকি দিয়ে আসছে।

থানা পুলিশসহ স্থানীয়দের কাছে অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার না পেয়ে পরিবার দুইটি বর্তমানে আতংকে জীবন-যাপন করছে। আর এ দখল কাজে স্থানীয় এক প্রভাবশালী আওয়ামী লীগ নেতা পরোক্ষভাবে সহায়তা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। তবে ওই আওয়ামী লীগ নেতা বিষয়টি অস্বীকার করেছেন।

সরেজমিনে ঘুরে ভুক্তভোগীদের সাথে কথা বলে এবং থানায় দেয়া লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার শাখারীকাঠী ইউনিয়নের হোগলাবুনিয়া গ্রামের অধিকাংশ সংখ্যালঘুরা তাদের ভিটেমাটি বিক্রি করে ভারতে চলে গেলেও মৃত পতিতবালা চক্রবর্তীর স্ত্রী আকুল বালা চক্রবর্তী ও মৃত মুকুন্দ সমদ্দারের পুত্র অমল সমদ্দার তাদের পরিবার নিয়ে যুগ যুগ ধরে ওই গ্রামে তাদের রেকর্ডীয় ভূমি বসবাস করে আসছে। এক পর্যায়ে তাদের রেকর্ডীয় প্রায় ৫ একর সম্পত্তি ভিপি তালিকাভূক্ত হওয়ায় তারা ওই সম্পত্তি ভিপি থেকে অবমুক্ত করার জন্য আদালতে পিটিশন মামলা নং-৯৩৮/১৩ এবং ৪৫২/১৩ দায়ের করলে কিছু সম্পত্তি ভিপি অবমুক্ত হয়েছে। অবশিষ্ট সম্পত্তি অবমুক্ত করার মামলা চলমান রয়েছে। 

ওই সম্পত্তি ভিপি তালিকাভূক্ত হওয়ার পর স্থানীয় মৃত হামিদ সেখের পুত্র জামায়াত নেতা মোসলেম সেখ ও মৃত ছায়েমদ্দিন শিকদারের পুত্র বিএনপি নেতা মোশারফ শিকদার তাদের বাহিনী নিয়ে কয়েক বছর যাবত ওই সংখ্যালঘু পরিবার দুটিকে তাদের ভিটেমাটি থেকে উচ্ছেদ করার ষড়যন্ত্র করতে থাকে। ওই জমিতে তাদের রোপিত ধান জমির মালিকানা দাবী করে জোরপূর্বক কেটে নিতে চায়।

বিষয়টি সমাধানের কথা বলে ওই জমিতে রোপিত গত তিন বছরের ধান কেটে স্থানীয় এক ইউপি চেয়ারম্যান তার নিকট জমা রেখেছেন।

গত কয়েকদিন ধরে ওই ভূমিদস্যুরা সংখ্যালঘুদের ভোগদখলীয় সম্পত্তিতে জোরপূর্বক ঘর তুলে সম্পত্তি দখল করে নেয়। 

ঘটনার বিষয়ে আকুলবালা চক্রবর্তী সাংবাদিকদের বলেন, বিএনপি-জামাত সরকারের আমলেও তারা তাদের সম্পত্তি শান্তিপূর্নভাবে ভোগ দখল করেছেন। আওয়ামীলীগ সরকারের আমলে জামাত-বিএনপি সমর্থিত মোশারফ শিকদার, মোসলেম সেখ গং আমাদের সম্পত্তি অবৈধভাবে দখল করছে এবং আমাদের শেষ সম্বল বসতঘরটিও আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেয়াসহ ভারতে চলে যাওয়ার হুমকি দিচ্ছে। এ ঘটনায় আমি থানাসহ স্থানীয় জন প্রতিনিধিদের কাছে অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার পাইনি।

অমল সমদ্দার অভিযোগ করে বলেন, আমাদের সম্পত্তি ভিপি তালিকাভূক্ত হলেও আমরা তা অবমুক্ত করার জন্য মামলা করে কিছু সম্পত্তি ফিরে পেয়েছি এবং বাকী সম্পত্তি উদ্ধারের মামলা চলছে। অথচ মোশারফ ও মোসলেম গংরা আমাদের সম্পত্তি অবৈধভাবে দখল করে নিয়েছে। আমরা স্থানীয় এক আওয়ামীলীগ নেতা ও ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে বিচার প্রার্থনা করেও কোন বিচার পাইনি। তিনি উল্টো আমাদের জমির তিন বছরের ধান জমা রেখেছেন। তার পরোক্ষ সেল্টারেই তারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে।

স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা সত্তার বিশ্বাস বলেন, হিন্দু পরিবার দুটি বর্তমানে অসহায় তাদের পাশে কেউ নেই। তাদের বৈধ সম্পত্তিতে তারা পরবাসির মত বসবাস করছে। যে কোন সময় তাদের বসতভিটেটুকুও ভূমিদস্যুরা দখল করে নিবে। বিএনপি সমর্থিত মোশারেফ ও মোসলেম গংরা প্রকাশ্যে তাদের বসতঘর আগুনে জ্বালিয়ে দেয়াসহ ভারতে চলে যাওয়ার হুমকি দিচ্ছে। 

অভিযুক্ত মোশারেফ শিকদার বলেন, আমরা কবলা সূত্রে জমির মালিক। আমাদের জমি আমরা ভোগ দখল করছি। তবে কতটুকু জমি কার কাছ থেকে কত বছর আগে কবলা মুলে খরিদ করেছে সে বিষয়ে স্পষ্ট কিছু বলতে পারেনি।

নাজিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. নাসির উদ্দিন মল্লিক বলেন, সংখ্যালঘুদের জমি দখলের কোন অভিযোগ এখনও পাওয়া যায়নি। তবে অভিযোগ পাওয়া গেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

এইবেলাডটকম/এমআর