eibela24.com
মঙ্গলবার, ১১, ডিসেম্বর, ২০১৮
 

 
মৌলভীবাজার সদরের ৬২৫ হেক্টর জমির ধান পানির নিচে
আপডেট: ০৩:৩৬ am ০৬-০৪-২০১৭
 
 


মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধিঃ বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা ঢলের পানিতে মৌলভীবাজার সদর উপজেলার ৬২৫ হেক্টর জমির ধান পানির নিচে তলিয়ে গেছে। এতে কৃষকদের মধ্যে হাহাকার তৈরি হয়েছে। চৈত্র মাসের অকাল বৃষ্টিতে শত শত কৃষকের স্বপ্ন বন্যার পানিতে মিশে গেছে।

তলিয়ে যাওয়া হাওরগুলোর মধ্যে রয়েছে গিয়াসনগর ইউনিয়নের হাইলহাওর, বাউলার হাওর, একাটুনা ইউনিয়নের কাউয়াদীঘি হাওর, আপার কাগাবলা ইউনিয়নের বরের হাওর, মোস্তফাপুর ইউনিয়নের হাইলহাওর, কনকপুর ইউনিয়নের চাতলা হাওর, আখাইলকুড়া ইউনিয়নের কাউয়াদীঘি হাওর।

মৌলভীবাজার সদর উপজেলা কৃষি কমর্কর্তা সুব্রত কুমার দত্ত জানান, চৈত্র মাসের অকাল বৃষ্টি ও ভারত থেকে নেমে আসা ঢলের পানিতে মৌলভীবাজার সদরের বিভিন্ন হাওরে ফলানো ধান   পানির নিচে তলিয়ে গেছে। আবহাওয়া ভালো না হলে আরো ধানি জমি তলিয়ে যাবার আশঙ্কা রয়েছে। তবে এখনি ক্ষয়ক্ষতির পরিমান নির্ণয় করা যাবে না বলে তিনি জানান।

কৃষি অফিস ও কৃষক সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, পাকা বা আধাপাকা ধান হলে চার পাঁচদিন পানির নিচে থাকলেও আশা করা যায়। কিন্তু ধানের থোড় আশার সময় এবং ধানেরর চারা শক্ত হওয়ার আগে পানির নিচে তলিয়ে গেছে। এ অবস্থা আরো কয়েকদিন চলতে থাকলে ফসল পাওয়ার সম্ভাবনা কম।

উল্লেখ্য, মৌলভীবাজারে ৫০ হাজার ৪৬৪ হেক্টর জমিতে বোরো চাষ করা হয়। কৃষি সম্প্রসারণ অফিস জানায়, মৌলভীবাজারে দুই লাখ ৪৭ হাজার ৮৯ জন কৃষক রয়েছেন।

এদিকে জেলার কুলাউড়ার হাকালুকি হাওরের ভূকশিমইল, ভাটেরা ও কাদিপুর ইউনিয়নের আংশিকসহ ৪ হাজার হেক্টর জমির ধান পানিতে তলিয়ে গেছে বলে কুলাউড়া কৃষি কর্মকর্তা জগলুল হায়দার জানিয়েছেন।

পানিতে ধান ক্ষেত তলিয়ে যাওয়ায় কৃষকরা বড় ক্ষতির সম্মুখীন হবেন। এটি প্রাকৃতিক সমস্যা এতে কিছু করার নেই। তবে পরবর্তীতে এ ক্ষতি পুষিয়ে উঠার জন্য কৃষকদের মধ্যে স্বল্পকালীন উৎপাদিত ফসলের বীজ সরবরাহ করা হবে। যাতে তারা এ ক্ষতি কিছুটা হলেও পুষিয় উঠতে পারে।

 

এইবেলাডটকম/কাঁকন/গোপাল