মঙ্গলবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
মঙ্গলবার, ৭ই ফাল্গুন ১৪২৫
 
 
রাজশাহীতে ডাল চাষে বিপ্লব,  বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা 
প্রকাশ: ০৬:১৮ am ১৪-০২-২০১৭ হালনাগাদ: ০৬:১৮ am ১৪-০২-২০১৭
 
 
 


রাজশাহী প্রতিনিধি : রাজশাহী অঞ্চলে বিভিন্ন জাতের ডালের চাষে বিপ্লব দেখা দিয়েছে। উৎপাদন খরচ কম ও ফলন ভাল হওয়ার গত কয়েক বছর থেকে রাজশাহী অঞ্চলের কৃষকরা বিভিন্ন ধরনের ডাল চাষের দিকে ঝুঁকেছে।

দাম ভাল পাওয়ায় প্রতিনিয়ত ডাল চাষের জমি বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিশেষ করে এবছর প্রায় ৫হাজারের বেশি জমিতে মসুর চাষ হয়েছে। কৃষি অফিস ধারণা করছে আগামী বছর এর চেয়ে আরো বেশি জমিতে মসুর চাষ হবে।

রাজশাহী আঞ্চলিক কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, রাজশাহী বরেন্দ্র অঞ্চল থেকে শুরু করে উঁচু নিচু জমিতে চাষ হচ্ছে মসুর। সেচ সুবিধা বা অন্যান্য সুযোগ সুবিধা বেশি থাকায় দিন দিন বাড়ছে মসুর চাষ।

আবহাওয়া অনুকুল থাকায় গত দুবছর থেকে এর উৎপাদনও বেড়েছে অস্বাভাবিকভাবে। এতে রাজশাহীতে উৎপাদিত মসুর এই এলাকার চাহিদা পুরণ করে বাইরের জেলা শহরে রফতানী করা সম্ভব হচ্ছে।

চলতি মৌসুমে রাজশাহীতে ৯শ’ ৮৭ হেক্টর জমিতে বিভিন্ন জাতের ডাল চাষ হয়েছে। এরমধ্যে এবার শুধু রাজশাহী অঞ্চলে ২হাজার ২শ’ ৯৬ হেক্টর জমিতে মসুর চাষ হয়েছে।

আবহাওয়া অনুকুল থাকলে মসুরসহ এবার চাষ করা বিভিন্ন জাতের ডালের বাম্পার ফলন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। অন্যান্য ডালের মাধ্যে এবার খেসাড়ি ডাল চাষ হয়েছে ৫০৮ হেক্টর। যা গত বছর ছিল মাত্র ৩ ৯১ হেক্টর। ছোলা চাষ হয়েছে ১৭শ’ ৫০ হেক্টর, যা গত বছর ছিল ১১২৮ হেক্টর।

দুর্গাপুর চাষিরা জানান, উপজেলার ডাঙা ও নিচু জমিতে এবার ব্যাপক হারে বিস্তীর্ণ মাঠ জুড়ে চাষিরা ব্যাপক ভাবে মসুর ডাল চাষ করেছে। এবছর উপজেলায় প্রায় ১হাজার হেক্টর জমিতে মসুর চাষ করা হয়েছে।

বপনের পর হতেই আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় মসুর ডালের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। দেবীপুর গ্রামের চাষি কামরুজ্জামান আলেক, ৭বিঘা, শ্যামপুর গ্রামের রশিদ ৪বিঘা, আলীপুর গ্রামের দেল মোহাম্মদ দেলু ১১বিঘা এবং পানানগর গ্রামের আহমেদ আলী ৫বিঘা জমিতে মসূর কালাই আবাদ করেছেন।

ওইসব চাষিরা জানান, এবার ১৪০ থেকে ১৬০ টাকা কেজি দরে বীজ ক্রয় করেন, এক চাষ, সামান্য রাসানিক সার প্রয়োগ ও কাটামাড়াই ১৫ থেকে ১৬ শ’ টাকা খরচ হবে। এতে প্রতি বিঘা জমি থেকে ৬ থেকে ৭মন করে। অল্প পরিশ্রমে চাষিরা জমিতে মসূর চাষ করে অধিক লাভবান হবেন।

রাজশাহী কৃষি অফিসের উপসহকারী কৃষি অফিসার, সাইফুল্লাহ জানান, চাষিরা অনেকটাই উদ্বুদ্ধ হয়েই বিভিন্ন জাতের ডাল চাষ করছেন। এতে প্রতিবছর ডালের এরিয়া বৃদ্ধি পাচ্ছে।

বিশেষ করে বাজারে মসুর ডালের দাম ভাল থাকায় চাষিরা চারা আমবাগান, পেঁপে বাগানসহ পরিত্যাক্ত জমিতেও মসুরসহ বিভিন্ জাতের ডাল চাষ করছেন।

এছাড়াও অনুকূল আবহাওয়া ও কৃষি বিভাগের কর্মকর্তাদের পরামর্শে নিয়ে এবার ডাল চাষ করা হয়েছে। আশা করা হচ্ছে এবার ডালের বাম্পার ফলন হবে।

 

এইবেলাডটকম/অরুন/গোপাল

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71